ইতিহাসে প্রথমবার পরীক্ষা না হয়েও, জুলাইয়ে মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিকের ফল প্রকাশ

791
মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার রেজাল্ট কিভাবে, জানিয়ে দিল রাজ্য
মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার রেজাল্ট কিভাবে, জানিয়ে দিল রাজ্য

ইতিহাসে প্রথমবার পরীক্ষা না হয়েও, জুলাইয়ের মধ্যে; মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিকের ফল ঘোষণা। করোনা আবহে ভোট হলেও; বাতিল হয়ে গেছে মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। বৃহস্পতিবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছেন; শুক্রবারের মধ্যেই জানানো হবে; কিভাবে এই দুই পরীক্ষার মূল্যায়ন করা হবে”। মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান; “আগামী জুলাইয়ের মধ্যেই; বের করা হবে দুই পরীক্ষার রেজাল্ট”। ইতিহাসে প্রথমবার পরীক্ষা না দিয়েও; হাতে রেজাল্ট পাবেন পরীক্ষার্থীরা।

বাতিল হয়ে গেছে দুটি পরীক্ষা; কিন্তু রেজাল্ট তো বের করতে হবে! কীভাবে হবে; মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকের মূল্যায়ন? তা আগামীকাল শুক্রবার ঘোষণা করা হবে বলেই; নবান্নে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তিনি বলেছেন, জুলাইয়ের মধ্যেই; মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের ফল প্রকাশ করা হবে।

করোনা আবহে দেশের অন্যান্য বোর্ডের মতো; এবার এ রাজ্যেও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা বাতিল হয়ে গিয়েছে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই মূল্যায়নের ভিত্তিতে; ফলপ্রকাশ হবে। রাজ্যের গঠিত ৬ সদস্যের বিশেষজ্ঞ কমিটির রিপোর্ট; ও জনমতের ওপর ভিত্তি করেই; রাজ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার। কীভাবে লক্ষ লক্ষ পরীক্ষার্থীর মূল্যায়ন করা হবে; তা জানানো হবে আগামীকাল।

আরও পড়ুনঃ ১১ বছর বয়সেই কম্পিউটার পোগ্রামিং বই লিখে বিশ্বকে চমকে দিল বাঙালি বালক

এদিনই সুপ্রিম কোর্টে সিবিএসই বোর্ড জানিয়েছে; ৩১ জুলাইয়ের সিবিএসই পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হবে। শীর্ষ আদালতে সিবিএসই-র হয়ে সওয়াল করতে গিয়ে; অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল বলেন; “দশম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পারফরমেন্সের ভিত্তিতে; ঠিক হবে সিবিএসই দ্বাদশের ফল। ৩০ শতাংশ ওয়েটেজ থাকবে; দশম শ্রেণির পারফরমেন্সে। ৪০ শতাংশ ওয়েটেজ থাকবে; একাদশ ও দ্বাদশের পারফরমেন্সে।

বিচারপতি এএম খানউইলকর ও বিচারপতি নীনেশ মহেশ্বরীর বেঞ্চে; অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল আরও জানান; “দশমের ক্ষেত্রে ৫টি বিষয়ের মধ্যে; সেরা তিনটি বিষয়ের নম্বর নেওয়া হবে। অন্যদিকে, দ্বাদশের ক্ষেত্রে ইউনিট, টার্ম প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষার; ফলও থাকবে নজরে। তিনি এটাও জানান, “কোনও ছাত্র-ছাত্রী নিজের নম্বর বা গ্রেডেশন নিয়ে অখুশি থাকলে; কোভিড পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বা স্কুল কর্তৃপক্ষের নির্ধারিত সময়ে; সশরীরে পরীক্ষায় বসে তা শুধরে নিতে পারবে”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন