দেশের কনিষ্ঠতম স্বাধীনতা সংগ্রামী, শহিদ ক্ষুদিরাম বসুকে ‘‌ সন্ত্রাসবাদী’ র পর এবার ‘অপরাধী’ তালিকায়‌

5658
দেশের কনিষ্ঠতম স্বাধীনতা সংগ্রামী, শহিদ ক্ষুদিরাম বসুকে ‘‌ সন্ত্রাসবাদী’ র পর এবার ‘অপরাধী’ তালিকায়‌
দেশের কনিষ্ঠতম স্বাধীনতা সংগ্রামী, শহিদ ক্ষুদিরাম বসুকে ‘‌ সন্ত্রাসবাদী’ র পর এবার ‘অপরাধী’ তালিকায়‌

প্রথমে, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্কুলপাঠ্যে দেশের কনিষ্ঠতম স্বাধীনতা সংগ্রামী শহিদ ক্ষুদিরাম বসুকে; ‘‌বিপ্লবী সন্ত্রাসবাদী’‌ তকমা দেওয়া হল। তা নিয়ে, রাজ্য জুড়ে শুরু হয়েছিল বিতর্ক। ভুল স্বীকার করে সেটি সংশোধন করা হবে বলে; জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এবার ফের স্বাধীনতা দিবসে জিফাইভ–এর (ZEE 5) এক ওয়েবসিরিজ–কে ঘিরে বিতর্ক ছড়াল। দেশের কনিষ্ঠতম স্বাধীনতা সংগ্রামী, শহিদ ক্ষুদিরাম বসুকে এবার রাখা হল ‘অপরাধী’ তালিকায়; রীতিমতো ছবি দিয়ে।‌

আরও পড়ুনঃ মেয়েদের বিয়ের সর্বনিম্ন বয়স পাল্টে যাচ্ছে, লালকেল্লায় বড় ঘোষণা মোদীর

মধ্যশিক্ষা পর্ষদের অষ্টম শ্রেণির বইয়ে; লেখা আছে ক্ষুদিরাম, প্রফুল্ল চাকীরা ‘বিপ্লবী সন্ত্রাসবাদী’। সেই বই ঘিরেই তোলপাড় হয়েছিল রাজ্য। প্রতিবাদে সরব হয়েছিল বাম, বিজেপি, কংগ্রেস। স্বাধীনতা সংগ্রামীদের ‘বিপ্লবী সন্ত্রাসবাদী’ বলা উচিত নয়; মুখ খুলেছিলেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুও। ভুল হয়ে গেছে স্বীকার করে; সংশোধন করা হবে বলে; জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেই এক ভুল আবার; এবার জি ৫ এর ওয়েব সিরিজে।

জিফাইভ–এর (ZEE 5) এর ‘‌অভয়’‌ (‌Abhay)‌ নামে; ওই ওয়েব সিরিজে নাম ভূমিকায়; পুলিশ সুপার অভয়প্রতাপ সিং–এর চরিত্রে; দুরন্ত অভিনয় করছেন কুনাল খেমু। ১৪ অগস্ট এর দ্বিতীয় সিজন; ‘‌অভয় ২’‌ (‌Abhay 2) ‌মুক্তি পায়। তারই এক দৃশ্যে দেখা যায়; থানায় অপরাধীকে জেরা করছেন অভয়প্রতাপ। সব ঠিকই চলছিল। কিন্তু সেখানে থাকা ‌অপরাধীদের তালিকা‌য়; (‌Most Wanted) নজর যেতেই চোখ কপালে ওঠার জোগার। কারণ সেই অপরাধীদের তালিকা‌য়; অন্য সব মুখের সঙ্গে বাঙালির অতি পরিচিত এবং প্রণম্য একটি মুখ রয়েছে। আর তা বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর।

আরও পড়ুনঃ জোর ঝটকা খেল চিন, টিকটক কিনে নিচ্ছে মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিস

দ্রুত ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে নেট দুনিয়ায়। টুইটে সরব হয়েছেন অনেকেই। জিফাইভ–কে (@ZEE5India) ট্যাগ করে; অনেকেই প্রতিবাদ জানিয়েছেন। জিফাইভ–কে ব্যান করার দাবি তুলে; নতুন হ্যাশট্যাগও (‌#BanZee5) ‌শুরু করেছেন। তবে, এই নিয়ে চুপ বাংলার বুদ্ধিজীবীরা। কেন, চুপ তাঁরা ? উঠেছে প্রশ্ন। অনেকেই বলছেন, “ভারতের অন্য কোন রাজ্যে এরকম ঘটনা ঘটলে; প্রতিবাদে সরব হতেন রাজ্যবাসী। বাঙালির শিরদাঁড়া নেই; তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দিয়েই সব শেষ”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন