শক্তিগড়ের ল্যাংচার কাছে হেরে গেল মিষ্টি হাব, মমতার স্বপ্নের প্রকল্প বন্ধের মুখে

311
শক্তিগড়ের ল্যাংচার কাছে হেরে গেল মিষ্টি হাব, মমতার স্বপ্নের প্রকল্প বন্ধের মুখে/The News বাংলা
শক্তিগড়ের ল্যাংচার কাছে হেরে গেল মিষ্টি হাব, মমতার স্বপ্নের প্রকল্প বন্ধের মুখে/The News বাংলা

বহু সাধ করে বানিয়েছিলেন মিষ্টি হাব। বর্ধমানের ল্যাংচা; সীতাভোগ; মিহিদানাকে; আরও বিখ্যাত করার আশাতে সরকারী প্রকল্পের আওতায় এনেছিলেন; মিষ্টি শিল্পকেও। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতার স্বপ্নের ও সাধের সেই প্রকল্প; আজ কয়েকবছরের মধ্যেই বন্ধের মুখে। ক্রেতার অভাবে বন্ধ; বর্ধমানের মিষ্টি হাবের অধিকাংশ দোকানের দরজা। সোমবার বর্ধমানে মুখ্যমন্ত্রীর সফর; তার আগেই বন্ধ মিষ্টি হাব; বর্ধমান শহরে ঢোকার মুখে; বামচাঁদাইপুর থেকে সরিয়ে শক্তিগড়ে নিয়ে যাবার দাবী উঠল।

বর্ধমান জেলা প্রশাসনের তরফে; ২০১৭ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে অনেকবার বিভিন্ন রকম উদ্যোগ নেওয়া হয়; এই মিষ্টি হাব-কে চালু করার জন্য। কিন্তু প্রতিবারেই সেই উদ্যোগ কার্যত বিফলে যায়। মুখ্যমন্ত্রীর সাধের মিষ্টি হাব একবারের জন্যও; সফল হয়নি উদ্বোধনের পর থেকে।

আরও পড়ুনঃ বিশ্ব রেকর্ড গড়ল ভারতীয় সেনা, প্রশংসায় পঞ্চমুখ গোটা দেশ

শুরুর থেকেই মিষ্টি হাবের ব্যবসায়ীদের দাবী ছিল; শক্তিগড়ের ল্যাংচার দোকানগুলি মূলত যেখানে চলে; সেখানে সমস্ত রুটের বাস দাঁড়ানোয়; দোকানগুলি ভালো চলে। মিষ্টি হাবের ব্যাবসায়ীরাও; তাই প্রশাসনের কাছে দফায় দফায় মিষ্টি হাবের সামনে; বাসস্টপ করার দাবি জানান। কিন্তু তাতে কোন লাভ হয়নি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের মিষ্টি হাবের সামনে; তৈরি হয়নি কোন বাস স্ট্যান্ড।

এদিকে শক্তিগড়ে যে জায়গায় ল্যাংচার দোকানগুলি অবস্থিত; সেখানে কলকাতা থেকে দুরপাল্লার সমস্ত বাস দাঁড়ায়। ধানবাদ; দুর্গাপুর; আসানসোলের দিক থেকে আসা দুরপাল্লার বাসগুলিও থামে; শক্তিগড়ের ঐ নির্দিষ্ট জায়গাতেই। যেহেতু অনেকটা জায়গা নিয়ে শক্তিগড়ের বিখ্যাত ল্যাংচা সহ; অন্যান্য মিষ্টির দোকানগুলি ছড়িয়ে আছে; তাই যাত্রীরা ঐ জায়গাকেই পছন্দ করে।

অন্যদিকে বর্ধমানে ঢোকার মুখে; বামচাঁদাইপুরে মমতার মিষ্টি হাবের সামনে; কোন পারকিং এর ব্যাবস্থা নেই। পারকিং এর সুবিধা না থাকার জন্য; সেখানে বাসস্ট্যান্ডের ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। বড় বাস তো দুরের কথা; ছোট ছোট প্রাইভেট গাড়ি দাঁড়ানোরও; খুব একটা জায়গা নেই মিষ্টি হাবের সামনে।

মুখ্যমন্ত্রীর সফরের মধ্যেই; নানান অভিযোগ উঠে আসছে মিষ্টি হাবকে ঘিরে। খোদ উত্তর বর্ধমানের বিধায়ক নিশিথ মল্লিক মন্তব্য করেন; “কোটি কোটি টাকার প্রকল্প একরকম জেদ করেই তৈরি করা হয়েছিল”। তিনি মিষ্টি হাবের খরচ হওয়া টাকা নিয়েও; তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। সবমিলিয়ে তৃণমূলের মধ্যেই প্রশ্নের মুখে মমতার স্বপ্ন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন