সুন্দরী শিল্পাকে সামনে রেখে স্বামী রাজ কুন্দ্রার নীল ছবির ব্যবসা, রমরমা চক্র ফাঁস

1441
সুন্দরী শিল্পাকে সামনে রেখে স্বামী রাজ কুন্দ্রার নীল ছবির ব্যবসা, রমরমা চক্র ফাঁস
সুন্দরী শিল্পাকে সামনে রেখে স্বামী রাজ কুন্দ্রার নীল ছবির ব্যবসা, রমরমা চক্র ফাঁস

সুন্দরী শিল্পাকে সামনে রেখে; স্বামী রাজ কুন্দ্রার নীল ছবির ব্যবসা। রমরমা চক্র ফাঁস করল; মুম্বাই পুলিশ। পর্ন ছবি বানানোর অভিযোগে; রাজ কুন্দ্রাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নির্দিষ্ট প্রমাণ পেয়েই, অভিনেত্রী শিল্পা শেট্টির স্বামী রাজ কুন্দ্রাকে; গ্রেফতার করল মুম্বই পুলিশ। পর্ন বানানোর পাশাপাশি তা বিশেষ অ্যাপের মাধ্যমে; ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে। রাজ কুন্দ্রা-সহ মোট ১১ জনকে; গ্রেফতার করেছে মুম্বই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ। মুম্বই পুলিশের দাবি, এর মূল ষড়যন্ত্রকারী; রাজ কুন্দ্রা।

মুম্বই পুলিশ জানিয়েছে, “পর্নোগ্রাফি সিনেমা তৈরি এবং বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে তা প্রকাশ করা নিয়ে; ফেব্রুয়ারিতে একটি মামলা দায়ের করেছিল ক্রাইম ব্রাঞ্চ। তদন্তের পর রাজ কুন্দ্রাকে গ্রেফতার করেছি; যিনি এই মামলায় মূল ষড়যন্ত্রকারী। আমাদের কাছে; পর্যাপ্ত তথ্য-প্রমাণ আছে”। সোমবার কুন্দ্রাকে ডেকে পাঠায়; মুম্বই পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের পর তাঁকে; গ্রেফতার করা হয়েছে। এর আগেও রাজকে একাধিকবার; এই বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

কী ভাবে চলত; পর্ন ছবির এই রমরমা চক্র?
এই ব্যবসায় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম বানিয়ে; ৮ থেকে ১০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন; শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রা। এরকমটাই দাবি; মুম্বই পুলিশের। ছবি শ্যুটিংয়ের পর, তা নির্দিষ্ট অ্যাপের মাধ্যমে; পাঠানো হত বিদেশে। পরে তা দেখা যেত; বিদেশি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে। এক অভিযুক্ত উমেশ কামাথকে; গ্রেফতারের পর গোটা বিষয়টি সামনে আসে। এর আগে এই মামলায়; এক অভিনেত্রীকেও গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুনঃ পাক মহিলার প্রেমে সায়রার সঙ্গে বিচ্ছেদও হয় দিলীপের

উমেশ কামাথের বয়ান অনুযায়ী; তিনি কুন্দ্রার সংস্থায় কাজ করতেন। গ্রেফতার হওয়া এক মডেল অভিনেত্রীকে, জিজ্ঞাসাবাদের সময়; কামাথের নাম উঠে এসেছিল। ব্রিটেনের একটি সংস্থায় সমন্বয়কারী হিসেবে; কাজ করতেন কামাথ। যিনি ওই মডেলের থেকে; অশ্লীল ভিডিয়ো নিতেন। সেগুলি পাঠিয়ে দিতেন; ওই ব্রিটেনের সংস্থার কাছে। তারপর সেই ভিডিয়োগুলি ‘হটশটস’ নামে; একটি অ্যাপে আপলোড করা হত।

পুলিশের দাবি, ওই অভিনেত্রীর ই-মেলে; অন্তত ১৫টি পর্ন ছবি পাওয়া যায়। এই সমস্ত ছবি; বিদেশে পাঠানো হত। প্রতিটি ছবির জন্য নেওয়া হত; ২-৩ লক্ষ টাকা। ওই নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে ২ জিবি পর্যন্ত; ডেটা আপলোড হত। এছাড়া এই অ্যাপে, আপলোড করা ভিডিও; ৭ দিনের মধ্যে, আপনা-আপনিই ডিলিট হয়।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন