দল ছাড়লেই ‘গদ্দার’, ফের অন্য দল ভাঙাতে আসরে তৃণমূল নেতারা

2145
দল ছাড়লেই 'গদ্দার', ফের অন্য দল ভাঙাতে আসরে তৃণমূল
দল ছাড়লেই 'গদ্দার', ফের অন্য দল ভাঙাতে আসরে তৃণমূল

দল ছাড়লেই ‘গদ্দার’; অন্যদিকে ফের অন্য দল ভাঙাতে আসরে তৃণমূল। এবার অভিযোগ শিলিগুড়িতে। শিলিগুড়ি তৃণমূলের তরফে, বামফ্রন্টের বিভিন্ন প্রাক্তন কাউন্সিলরদের; দলে টানতে যোগাযোগ করা হচ্ছে তৃণমূল নেতাদের তরফ থেকে। এমনটাই অভিযোগ করা হয়েছে; বামফ্রন্ট এর পক্ষ থেকে। ‘গণতান্ত্রিকভাবে জিতে এসে, সেই ক্ষমতাকে অগণতান্ত্রিকভাবে ব্যবহার করছে তৃণমূল’; অভিযোগ করেছেন সিপিএমের দার্জিলিং জেলা সম্পাদক জীবেশ সরকার। বিধানসভা ভোটে জেতার পর, বামেদের হাত থেকে; শিলিগুড়ি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন কাড়তে; ফের নতুন করে উদ্যোগী হয়েছে তৃণমূল।

শিলিগুড়ি পুর নির্বাচনে, ৪৭টি ওয়ার্ডের মধ্যে; ২৩টি আসন পায় বামফ্রন্ট; ১৭টি তৃণমূল; ৪টি কংগ্রেস; ২টি বিজেপি; ১টি নির্দল পায়। পরে বাম কাউন্সিলর, ফরওয়ার্ড ব্লকের দূর্গা সিং; তৃণমূলে যোগ দেন। একমাত্র নির্দল কাউন্সিলর অরবিন্দ ঘোষ; মারা যান। আর কাউকে সেই সময় তৃণমূল; দলে টানতে না পারায়, বামেদের বোর্ড অক্ষত থাকে। এবার ফের বোর্ড দখল করতে; কলকাঠি নাড়ছে তৃণমূল; এমনটাই অভিযোগ বামেদের।

সম্প্রতি শিলিগুড়ির দীর্ঘদিনের সিপিএম কাউন্সিলর; কমল আগারওয়াল এবং আরএসপির কাউন্সিলর; রামভজন মাহাতো তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। তারা দুজনই শিলিগুড়ির বিদায়ী পুর বোর্ডের সদস্য ছিলেন। রাম ভজন বাবু; ডেপুটি মেয়র পদ সামলাচ্ছিলেন। অন্যদিকে কমলবাবু ছিলেন; ট্রেড  লাইসেন্স এবং উদ্যান ও কানন বিভাগের মেয়র পারিষদ। তারপর থেকেই ফের দল ভাঙানোর খেলা; শুরু করেছে তৃণমূল। অভিযোগ বাম শিবিরের।

আরও পড়ুনঃ ‘পরিকাঠামোর উন্নয়ন করুন’, ফিরহাদকে ২লাখ টাকা ফেরালেন ঋষভের পরিবার

দুই বাম নেতা তৃণমূলে যোগ দিতেই; বামফ্রন্টের মধ্যে আবার বড় ভাঙনের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তৃণমূলের তরফে একাধিক কাউন্সিলরকে; বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে দলে টানার চেষ্টা করা হচ্ছে; বলেই অভিযোগ বামেদের। সিপিএম জেলা সম্পাদক জীবেশ সরকার, বৃহস্পতিবার বলেন; “এই কদিন আগেও তৃণমূল থেকে বিজেপিতে চলে যাওয়ায়; কিছু নেতাকে তৃণমূল গদ্দার, বেইমান, বিশ্বাসঘাতক বলেছিল। তারাই এখন বামফ্রন্ট থেকে ভাঙিয়ে; নেতাদের দলে নিচ্ছে”।

শিলিগুড়ি তৃণমূলের তরফ থেকে; সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। তৃণমূলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে; “দলের তরফ থেকে কাউকেই; ফোন করা হচ্ছে না। কাউকেই বলা হচ্ছে না; তৃণমূলে যোগ দিন। যাঁরা নিজে থেকেই, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে সামিল হতে তৃণমূলে আসছেন; তাঁদের স্বাগত জানানো হচ্ছে”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন