শুভেন্দু বিজেপিতে, বাবা শিশিরকে জেলা সভাপতির পদ থেকে সরালেন মমতা

447
শুভেন্দু বিজেপিতে, বাবা শিশিরকে জেলা সভাপতির পদ থেকে সরালেন মমতা
শুভেন্দু বিজেপিতে, বাবা শিশিরকে জেলা সভাপতির পদ থেকে সরালেন মমতা

তৃণমূলের তরফে রাজনৈতিক ভাবে আর কোণঠাসা করার চেষ্টা করা হল অধিকারী পরিবারকে। দলের সাংগঠনিক পদ থেকে সরানো হল শিশির অধিকারীকে। পূর্ব মেদিনীপুরের তৃণমূলের জেলা সভাপতি পদ থেকে তাঁকে অ’পসারণ করে দায়িত্ব দেওয়া হল সৌমেন মহাপাত্রকে। দলের এই সিদ্ধান্ত স্পষ্ট খ’র্ব করা হল শিশির অধিকারীর ক্ষ’মতা। শুভেন্দু অধিকারির আধিপত্যের দা’পটে এতদিন পশ্চিম মেদিনীপুরের সংগঠনের দেখভাল করতেন সৌমেন্দু অধিকারী। তা নিয়ে যথেষ্ট ক্ষো’ভ ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভার সদস্য সৌমেন মহাপাত্রের। এবার একেবারে নিজের জেলার তৃণমূল সংগঠনের মাথায় বসলেন তিনি।

শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগদানের পরেই; অধিকারী পরিবারের সদস্যদের সরিয়ে দেওয়া হয় তৃণমূলের যাবতীয় দায়িত্ব থেকে। শুভেন্দু অধিকারীর ছোট ভাই সৌমেন্দু অধিকারীকে সরিয়ে দেওয়া হয়; কাঁথি পুরসভার প্রশাসকের পদ থেকে। এতেই রাজ্যের সঙ্গে; অধিকারী পরিবারের সম্পর্কের ফা’টল চওড়া হয় বলে মনে করেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। সৌমেন্দু অধিকারীর অ’পসারণের জল গড়ায় আদালত পর্যন্ত। পরে শুভেন্দুর হাত ধরে বিজেপিতে যান সৌমেন্দু অধিকারীও।

আরও পড়ুনঃ গরু ও কয়লা পাচার কাণ্ডে, বাংলার ২০ আইপিএস অফিসারের নাম সিবিআই তালিকায়

পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সভাপতির পদ থেকে; তৃণমূলের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার চেয়ারম্যান পদে আনা হল শিশির অধিকারীকে। এই প্রসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী বলেন; “আমি চাই আমার বাবা মা সুস্থ থাকুক। আমি কী রাজনীতি করব; সেটা যেমন আমার বাবা মা বলেনা; তেমন আমার বাবা মা কী রাজনীতি করবে; তা নিয়েও আমি মন্তব্য করি না”। এরসঙ্গেই বিজেপি নেতা বলেন; “আমি ওই প্রাইভেট লিমিটেড পার্টি সম্পর্কে কিছুই বলব না। ওরা কর্মচারী খোঁজে। যাঁরা থাকতে চান; তাঁরা থাকেন। যাঁরা চান না; তাঁরা বেরিয়ে আসেন”।

আরও পড়ুনঃ কোটি কোটি টাকা ত’ছরুপের দায়ে, ইডির হাতে গ্রে’ফতার প্রাক্তণ তৃণমূল সাংসদ

সোমবার রাতে রাজ্যের তরফে দিঘা-শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে শিশির অধিকারীকে অ’পসারণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যদিও নতুন কমিটিতে চেয়ারম্যান পদে রাখা হয়েছে শিশিরবাবুকে। আদতে অধিকারীদের ক্ষ’মতা খ’র্ব করতেই রাজ্যের এই সিদ্ধান্ত বলেই মনে করা হচ্ছে। ওয়াকিবহল মহলের মত, শুভেন্দু ও সৌমেন্দুর বিজেপি যোগের কারণেই তৃণমূলে থেকেও দলের সঙ্গে ক্রমশ দূরত্ব বাড়ছে শিশিরবাবুর।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন