“ক্ষমতায় এসে বিভিন্ন পদ থেকে সরানোর পর সৌমিত্রর মরদেহ নিয়ে ‘নাটক’ করলেন”; মমতাকে তোপ অধীরের

2463
"ক্ষমতায় এসে বিভিন্ন পদ থেকে সরানোর পর সৌমিত্রর মরদেহ নিয়ে ‘নাটক’ করলেন"; মমতাকে তোপ অধীরের

“ক্ষমতায় এসে বিভিন্ন পদ থেকে সরানোর পর; সৌমিত্রর মরদেহ নিয়ে ‘নাটক’ করলেন”; এবার মমতাকে তোপ অধীরের। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শেষযাত্রায় মিলেমিশে গিয়েছিল; সব রাজনৈতিক রং। অবশ্য তারপরই ঢুকে পড়ল রাজনীতি। বুধবার, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের গলফ গ্রিনের বাড়িতে যান; প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। এদিন সকাল ১১টায় সেখানে পৌঁছন তিনি। প্রায় মিনিট ১৫; সৌমিত্রবাবুর বাড়িতে ছিলেন অধীর চৌধুরী। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে বর্তমান রাজ্য সরকার তাঁর প্রাপ্য সম্মান দেয়নি; অভিযোগ করেন তিনি। “অধীরবাবু আসায় আমরা খুশি; তবে এই নিয়ে বিতর্ক চাই না”; জানিয়ে দিয়েছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের কন্যা পৌলমী বসু।

বুধবার সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের গলফ গ্রিনের বাড়িতে গিয়ে; প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী অভিযোগ করলেন; “সৌমিত্রবাবুর মরদেহ নিয়ে বাংলায় ‘নাটক’ হল। অথচ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার; সৌমিত্রবাবুকে বিভিন্ন পদ থেকে অপসারণ করেছিল।বেঁচে থাকতে যোগ্য সম্মান দেননি। আর সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পর; তাঁর মরদেহ নিয়ে রাজনীতি করেছে মমতা সরকার”।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূলের কোন কোন বড় নেতা দল ছাড়বেন শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে

অধীর এদিন বলেন; “সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পর; তাঁর মরদেহ নিয়ে অনেক নাটক হয়ে গেল; রাজনীতি হয়ে গেল। কিন্তু যে সমস্ত পদে তাঁকে বসানো হয়েছিল; ২০১১ সালের পর তা একটা একটা করে তাঁর কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হল। ২০২০ সাল পর্যন্ত অনেক ছোটোখাটো, মাঝারি, এ পাড়ার-সে পাড়ার শিল্পীদের; সম্মান দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, যিনি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন একজন অভিনেতা এবং শিল্পী; তাঁকে কিন্তু কখনও এই সরকার সম্মান দেওয়ার; প্রয়োজন বোধ করেনি। উল্টে সব পদ কেড়ে নেয়”।

পাশাপাশি রাজ্য সরকারের কাছে অধীর আর্জি জানান; সৌমিত্রবাবুর স্মৃতি জীবন্ত রাখতে একটি অডিটোরিয়াম তৈরি হোক। একইসঙ্গে সত্যজিৎ রায় ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউটে; সৌমিত্রবাবুর নামে একটি চেয়ার সংরক্ষিত রাখার জন্য; কেন্দ্রকে আর্জি জানাবেন বলেও জানান অধীর।

তবে বঙ্গে ক্ষমতায় আসার এক বছর পরেই; সারাজীবনের অবদানের জন্য সৌমিত্রবাবুর হাতে চলচ্চিত্র পুরস্কার তুলে দেন; তৃণমূল কংগ্রেস সরকার। সাংস্কৃতিক তথা বিনোদন জগতের ক্ষেত্রে; মুখ্যমন্ত্রীর যে ঘনিষ্ঠ বলয় তৈরি হয়েছিল; সেই সীমানার ধারেকাছে দেখা না গেলেও; ২০১৭ সালে সৌমিত্রবাবুকে রাজ্যের সর্বোচ্চ সম্মান বঙ্গবিভূষণ দেওয়া হয়েছিল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন