বিতর্কিত রঙমিলান্তি পোশাকেই বিজেপিতে শোভন বৈশাখী

221
বিতর্কিত রঙমিলান্তি পোশাকেই বিজেপিতে শোভন বৈশাখী/The News বাংলা
বিতর্কিত রঙমিলান্তি পোশাকেই বিজেপিতে শোভন বৈশাখী/The News বাংলা

বিতর্কিত রঙমিলান্তি পোশাকে বিজেপিতে যোগ দিলেন শোভন বৈশাখী। সব জল্পনার শেষ করে বিজেপির মালা বরন করে নিলেন দুজনে। বান্ধবীকে অপদস্তের প্রতিশোধ নিতে; দীর্ঘদিনের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বড়সড় ধাক্কা দিলেন শোভন। বুধবার বিকেলে দিল্লীর বিজেপি পার্টি অফিসে বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে পৌঁছে যান শোভন চট্টোপাধ্যায়। দুজনের পরনেই হালকা সবুজ রঙয়ের পোশাক। সামাজিক রীতিনীতিকে কার্যত বুড়ো আঙুল দেখিয়ে; সবুজে সবুজ হয়ে দিদির কাননে ফুটল পদ্ম।

ডিভোর্স মামলায় হাজিরা দিতে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে আসা; বৈশাখীর পোশাকের রঙ নিয়েও আলোচনা হয়েছিল একসময়। ডিভোর্স মামলায় হাজিরা দিতে বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আদালতে এসেছিলেন শোভন ৷ আদালতে উপস্থিত প্রত্যেকেরই চোখ টেনেছিল দুজনের ম্যাচিং করা পোশাকে; এই নিয়ে অনেক বিদ্রূপের মুখেও পড়েন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুনঃ কয়েক দশকের দিদি ভাইয়ের সম্পর্ক সব শেষ, রাখীর আগে মমতাকে ছেড়ে মোদী পরিবারে শোভন

দীর্ঘদিন ধরেই জল্পনা ছিল শোভনের পদ্ম শিবিরে যোগদানের। মঙ্গলবার রাতের প্লেনেই বান্ধবীকে নিয়ে দিল্লি রওনা দিয়েছেন; প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। বুধবার বিকালে সময় মত পৌঁছেও গেছেন দিল্লীর বিজেপি কার্যালয়ে। বিজেপির সদর দফতরে শোভন ও বৈশাখীকে বরন করে নিলেন প্রাক্তন তৃণমূল সঙ্গী মুকুল রায়।

বুধবার; দিল্লীর বিজেপি পার্টি অফিসে উপস্থিত ছিলেন; তৃণমূলের দেবশ্রী রায়ও। একেরপর এক টলি অভিনেতা নেত্রীর পরে; বুধবার সবাইকে চমকে দিয়ে রায়দিঘির বিধায়ক দেবশ্রী রায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপি পার্টি অফিসে।

আরও পড়ুনঃ কলকাতা পুরসভা ভোটেই বিজেপির হাল ধরছেন বৈশাখী শোভন

উনিশের ভোটে বড়সড় ধাক্কা খাবার পরে; তৃণমূলের তরফে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে আবারও দলমুখী করার অনেক চেষ্টা করেছিল তৃণমূল নেতৃত্ব। গত ২৩ জুলাই রাতে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাটে; ঘণ্টাখানেক বৈঠক করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেই বৈঠকে ছিলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও। তখন কাকপক্ষীতে জানতে পারেনি শোভন বৈশাখীর পরিকল্পনা।

সামনেই কলকাতা পুরসভা নির্বাচন। বিজেপি সূত্রে খবর; তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে পুরসভা নির্বাচনে; শোভন চট্টোপাধ্যায়ই বিজেপির প্রথম পছন্দ। তাই যদি হয়; তাহলে পুরসভায় নিজের হারান চেয়ারের জন্য; তৃণমূলের বিরুদ্ধে পদ্ম শিবিরে লড়তে দেখা যাবে এক সময়ে মুখ্যমন্ত্রীর প্রিয় কাননকে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন