সম কাজে সম বেতনের দাবি, গণ-ছুটির পথে হাঁটার হুঁশিয়ারি বাংলার নার্সদের

5174
সম কাজে সম বেতনের দাবি, গণ-ছুটির পথে হাঁটার হুঁশিয়ারি বাংলার নার্সদের
সম কাজে সম বেতনের দাবি, গণ-ছুটির পথে হাঁটার হুঁশিয়ারি বাংলার নার্সদের

সম কাজে সম বেতনের দাবি; গণ-ছুটির পথে হাঁটার হুঁশিয়ারি বাংলার নার্সদের। করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কার মাঝেই; সোমবার ‘হাড় হিম’ করা দৃশ্য দেখা গেল এসএসকেএম হাসপাতালে। বেতন বৃদ্ধির দাবিতে, নার্সদের বিক্ষোভ; সোমবারই পা দিয়েছে সপ্তম দিনে। কিন্তু করোনা বিধি অগ্রাহ্য করছেন, সরকারি হাসপাতালের নার্স-রাই; এসএসকেএম হাসপাতাল চত্বরের এই দৃশ্য; একাধিক প্রশ্ন তুলে দিয়েছে। কোভিড বিধি শিকেয় তুলে সোমবার হাসপাতাল চত্বরেই, জমায়েত করে; বিক্ষোভ দেখান কয়েকশো চিকিৎসক।

‘নার্সেস ইউনিটি’ নামক সংগঠনের পক্ষ থেকে; এই বিক্ষোভ দেখানো হয়। দাবি-দাওয়া পূরণ না হলে, গণ-ছুটির পথে হাঁটার; হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে নার্সদের পক্ষ থেকে। বর্তমান বেতন কাঠামো নিয়ে; নার্সদের মধ্যে অসন্তোষ দীর্ঘদিনের। সম কাজে সম বেতনের দাবি জানিয়ে; বছর দুই-তিন আগে থেকেই এই ক্ষোভ-বিক্ষোভ চলছে।

আরও পড়ুনঃ জলমগ্ন রাজ্য, বাংলার খানাকুলে উদ্ধার কাজে নামল ভারতীয় সেনা

বছর দুয়েক আগে, সরকারি তরফে; সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্রুতিও মিলেছিল। কিন্তু নারসদের অভিযোগের; কোনও সমাধান হয়নি। সেই নিয়ে গত সোমবার থেকে; ‘নার্সেস ইউনিটি’ সংগঠন বিক্ষোভ চালাচ্ছে। সোমবার সেই বিক্ষোভ ৭ দিনে পড়েছে; এবং তা ক্রমশ তা আরও বড় আকার ধারণ করছে। যাঁরা জীবনে ঝুঁকি নিয়ে অন্য রোগীর প্রাণ বাঁচান; তাঁদেরকেই নিজেদের দাবি পূরণে ক্রমাগত বিক্ষোভের পথে হাঁটতে হচ্ছে।

সম কাজে সম বেতনের দাবি, গণ-ছুটির পথে হাঁটার হুঁশিয়ারি বাংলার নার্সদের
সম কাজে সম বেতনের দাবি নার্সদের

বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার জন্য সোমবার; নার্সেস ইউনিটির প্রতিনিধিদের স্বাস্থ্য ভবনে ডেকে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সূত্রের খবর, একপ্রস্থ আলোচনা পরও; কোন‌ও সমাধান সূত্র সেখানে বের হয়নি। নার্সেস ইউনিটির সম্পাদক ভাস্বতী মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন; “এ দিনের পরে দাবি আদায়ে আর‌ও কঠোর পদক্ষেপ; গ্রহণ করতে সরকার বাধ্য করল”। তিনি সাফ জানিয়েছেন, দাবি না আদায় করে; তাঁরা অবস্থান থেকে সরছেন না। প্রয়োজনে গণ-ছুটির পথে, হাঁটতে পারেন নার্সরা; এমন হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু সোমবার, রাজ্যের অন্যতম সেরা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের ছবি দেখে; প্রশ্ন তুলেছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের একটি বড় অংশ। প্রশাসন ও সরকারের তরফে যখন বারবার করে, ভিড় এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে; এবং জমায়েতও যত সম্ভব না করতে বলা হচ্ছে; তখন খোদ সরকারি হাসপাতালের এই দৃশ্যে বহু প্রশ্ন উঠে গেছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন