৩২ বছর পর কলকাতায় ফিরল, আজও রহস্য ‘স্টোনম্যান’ আতঙ্ক

5920
৩২ বছর পর কলকাতায় ফিরল, আজও রহস্য ‘স্টোনম্যান’ আতঙ্ক
৩২ বছর পর কলকাতায় ফিরল, আজও রহস্য ‘স্টোনম্যান’ আতঙ্ক

৩২ বছর পর কলকাতায় ফিরল; আজও রহস্য ‘স্টোনম্যান’ আতঙ্ক। ১৯৮৯ এর পরে; ২০২১। ৩২ বছর পর কলকাতায় ফের; ‘স্টোনম্যান’ আতঙ্ক। সেই একই ভাবে; খুন এর দৃশ্য! খাস কলকাতায় রাতের অন্ধকারে; পাথর দিয়ে থেঁতলে দেওয়া হল যুবকের মাথা। গুরুতর জখম অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি যুবক; ঘটনাস্থলে মিলেছে রক্তমাখা পাথর। যার জেরেই স্টোনম্যান আতঙ্ক; দানা বাঁধতে শুরু করেছে। দুষ্কৃতীর খোঁজে তদন্ত শুরু করেছে; কলকাতা পুলিশ। ১৯৮৯ সালে এইভাবেই; একের পর এক মানুষ খুন হয়েছিলেন।

মঙ্গলবার রাতের ঘটনা; উত্তর কলকাতার বিকে পাল অ্যাভিনিউ-তে। রাস্তার ধারে খাটিয়ায় ঘুমোতেন; জগৎপ্রকাশ নামে ওই যুবক। পেশায় তিনি হোটেল কর্মী, খানিকটা দূরেই; শুয়ে ছিলেন তাঁর বাবাও। অভিযোগ, রাতে কেউ বা কারা; জগতের মাথা পাথর দিয়ে থেঁতলে দেয়। কিন্তু কোনও চিৎকার; শুনতে পাননি তাঁর বাবা। এদিন সকালে রক্তাক্ত অবস্থায়; ছেলেকে পড়ে থাকতে দেখে আঁতকে ওঠেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ আড়ালে কি অন্যকিছু, মহিলা ও বিদেশিনীদের নামে ঘরভাড়া নিয়ে বাংলায় দেদার ‘ফুর্তি’

ছুটে আসে আশপাশের লোক; ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। তদন্তে নেমেছে জোড়াবাগান থানার পুলিশ; চলছে জিজ্ঞাসাবাদ। মাথায় গুরুতর জখম নিয়ে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে; ভর্তি জগৎপ্রকাশ। তদন্তে নেমে ঘটনাস্থল থেকে; একটি রক্তমাখা পাথর উদ্ধার করেছে পুলিশ। কে কী উদ্দেশে এই ঘটনা ঘটিয়েছে; খতিয়ে দেখছে পুলিশ। জগতের সঙ্গে কারওর ব্যক্তিগত শত্রুতা রয়েছে কি না; তাও দেখা হচ্ছে। আর এর জেরেই ফিরল; কলকাতার ‘স্টোনম্যান আতঙ্ক’।

কিন্তু কী এই; কলকাতার স্টোনম্যান আতঙ্ক? ১৯৮৯ এর জুন মাসের শুরুর দিক; পাথর হাতে একের পর ভয়ঙ্কর খুন করে এক দুষ্কৃতী। পরপর ৬ মাসে; মোট ১২ জনকে খুন করা হয়। আতঙ্কে কেঁপে উঠেছিল; গোটা শহর। ভারী পাথর দিয়ে মাথায় আঘাত করে; সিরিয়াল খুনি শিকারদের হত্যা করত। তবে সেই খুনিকে, হাজার চেষ্টা করেও; কোনওদিনও ধরতে পারেনি; কলকাতা পুলিশ। সেই রহস্য; আজও রহস্যই রয়ে গেছে।

১৯৮৫-৮৮ সালে মুম্বইতে; প্রথম হানা দিয়েছিল স্টোনম্যান। কলকাতা ও মুম্বইয়ের আততায়ী; এক কি না তা নিয়েও আছে ধন্দ। মঙ্গলবার রাতের বিকে পাল অ্যাভিনিউয়ের ঘটনায়; শহরবাসীর মনে সেই স্টোনম্যান আতঙ্ক আবার ফিরে এল; বলে মনে করছে পুলিশি মহলই।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন