সুভাষ চিত্তরঞ্জন, বিধানচন্দ্র জ্যোতির পর মমতা দিলীপ, বাংলার নেতাদের বিরাট পরিবর্তন

308
সুভাষ চিত্তরঞ্জন, বিধানচন্দ্র জ্যোতির পর মমতা দিলীপ, বাংলার নেতাদের বিরাট পরিবর্তন/The News বাংলা
সুভাষ চিত্তরঞ্জন, বিধানচন্দ্র জ্যোতির পর মমতা দিলীপ, বাংলার নেতাদের বিরাট পরিবর্তন/The News বাংলা

সুভাষচন্দ্র বসু, চিত্তরঞ্জন দাশ, বিধানচন্দ্র রায় ও জ্যোতি বসুর পর মমতা দিলীপ; বাংলার নেতাদের বিরাট পরিবর্তন এসেছে কয়েকদশকে। নেতারা এখন আর শুধুই সমাজসেবক নন; তাঁরা এখন স্বার্থসেবক আবার অনেক সময় কমেডিয়ানও। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বা বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ; দুজনেই মানুষকে হাসানোতে বেশ পারদর্শী। সোমবারই গরুর দুধে সোনা থাকে বলে; গোটা রাজ্যকে হাসিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। মমতাও কম যান না। বাংলার রাজনৈতিক নেতাদের এত অধঃপতন কেন? উঠছে প্রশ্ন।

একসময় বাংলায় রাজনীতি করতেন সুভাষচন্দ্র বসু, চিত্তরঞ্জন দাশ এর মত রাজনৈতিক নেতারা। যাদের আমলে বাংলাই ছিল দেশের সেরা। বাংলার স্বাধীনতা আন্দোলন পথ দেখাত গোটা দেশকে। তারপরে সেই রাজনীতি ধরে রাখলেন বিধানচন্দ্র রায় ও জ্যোতি বসুর মত নেতারা। মুখ্যমন্ত্রী বিধানচন্দ্র রায়ের আমলে; বিরোধী নেতা জ্যোতি বসুর সঙ্গে বিধানসভায় তাঁর তর্ক বিতর্ক; আজও সোনার অক্ষরে লেখা। প্রণব মুখোপাধ্যায় হলেন কেন্দ্রীয় নেতা। হয়েছেন অর্থমন্ত্রী। বিশ্বব্যাপি মন্দার মাঝে; প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এর সঙ্গে সামলেছেন দেশের বিপদ।

তাঁদের পর বর্তমানে রাজ্যের রাজনৈতিক হাল সামলাচ্ছেন; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও দিলীপ ঘোষের মত নেতারা। আর এখানেই শুরু হয়েছে সমস্যা। এখন আর বিধানসভার তর্ক বিতর্ক; সংবাদ শিরনামে আসে না। কারণ কোন ইস্যু নিয়ে বিধানসভায়; সেরকম উল্লেখযোগ্য আলোচনা হয়ই না। কারণ অর্থনীতি বা কোন বিল নিয়ে আলোচনার যোগ্যই নন; এখনকার নেতা নেত্রীরা। বাম নেতারা চেষ্টা করেন; কিন্তু বাংলায় তাঁদের অস্তিত্ব এখন মাইক্রোস্কোপ দিয়ে খোঁজার মতই।

কিন্তু নিজেদের বুদ্ধি বা জ্ঞান না থাকায়; তাঁরা কোন বিল বা কোন ইস্যুতে মত দেন না। আর দিলেও মুখ খুললেই কমেডি। মুখ্যমন্ত্রীর বিষ্ণুমাতা বা ১৫০০ কেজির বাচ্চা বা ফণা তোলা সাপ বা ডহরবাবুর খোঁজ; এখন বাংলার লোকগাথার পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। দিলীপ ঘোষও কম যান না। সহজপাঠ বিদ্যাসাগরের লেখা; গরুর দুধে সোনা থাকে; বিদেশি গরু গোমাতা নয়; জাতীয় মন্তব্য তাঁকেও মমতার মতই বাংলার সেরা রাজনৈতিক কমেডিয়ানের খ্যাতি দিয়েছে।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন; বাংলার রাজনৈতিক নেতাদের মান সারা দেশের সঙ্গেই পাল্লা দিয়ে কমেছে। শিক্ষিত ও বিদগ্ধ মানুষ রাজনীতির নোংরা থেকে মুখ ফিরিয়েছেন; আর তাই বাংলার রাজনীতির এই হাল; মত তাঁদের।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন