চলে গেলেন বাংলার বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী

426
চলে গেলেন বাংলার বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী/The News বাংলা
চলে গেলেন বাংলার বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

মঙ্গলবার সকালে মারা গেলেন; বাংলাদেশের বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী। সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন একুশে পদকপ্রাপ্ত; বরেণ্য সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী মারা গেছেন। বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোর সাড়ে চারটায় তিনি মারা যান; বলে সিঙ্গাপুর থেকে নিশ্চিত করেছেন তাঁর মেয়ে ফাল্গুনী নন্দী।

চিকিৎসার জন্য বাংলাদেশ থেকে সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়ার পর; সুবীর নন্দীর শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নতি হলেও; এরপর অবনতি হতে থাকে। সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা চলাকালিন পরপর তিনবার হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হন তিনি। ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায়ও একবার হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন। সব মিলিয়ে তাঁর শারীরিক অবস্থা অবনতির দিকে যাচ্ছিল। মঙ্গলবার ভোরে পরলোকগমন করলেন এই সঙ্গীত শিল্পী।

সুবীর নন্দী (১৯ নভেম্বর ১৯৫৩-৭ মে ২০১৯); হলেন একজন বিখ্যাত বাংলাদেশী সঙ্গীতশিল্পী। তিনি মূলত চলচ্চিত্রের গানে কন্ঠ দিয়েই খ্যাতি অর্জন করেন। চলচ্চিত্রের সঙ্গীতে তার অবদানের জন্য; বাংলাদেশ সরকার তাকে পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করেন। তিনি মহানায়ক(১৯৮৪); শুভদা (১৯৮৬); শ্রাবণ মেঘের দিন (১৯৯৯); মেঘের পরে মেঘ (২০০৪) ও মহুয়া সুন্দরী (২০১৫) চলচ্চিত্রের গানে কন্ঠ দিয়ে পাঁচবার এই পুরস্কার লাভ করেন।

বরেণ্য সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী দীর্ঘ ৪০ বছরের ক্যারিয়ারে; গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশি গান। বেতার থেকে টেলিভিশন; তারপর চলচ্চিত্রেও উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। ১৯৮১ সালে তাঁর প্রথম একক অ্যালবাম ‘সুবীর নন্দীর গান’; বাজারে আসে ডিসকো রেকর্ডিংয়ের ব্যানারে।

সুবীর নন্দী প্রথম গান করেন; ১৯৭৬ সালে আবদুস সামাদ পরিচালিত ‘সূর্যগ্রহণ’ চলচ্চিত্রে। চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করে; চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন তিনি। আর চলতি বছরে সংগীতে অবদানের জন্য; বাংলাদেশ সরকার দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান একুশে পদকে ভূষিত করেছে কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দীকে।

সুবীর নন্দী হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং থানায় নন্দীপাড়ায় এক কায়স্থ পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা-সুধাংশু নন্দী ছিলেন একজন চিকিৎসক ও সঙ্গীতপ্রেমী। তার মা পুতুল রানী চমৎকার গান গাইতেন; কিন্তু রেডিও বা পেশদারিত্বে আসেন নি। ছোটবেলা থেকেই তিনি ভাই-বোনদের সঙ্গে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে তালিম নিতে শুরু করেন; ওস্তাদ বাবর আলী খানের কাছে।

সুবীর নন্দী গানের জগতে আসেন; ১৯৭০ সালে ঢাকা রেডিওতে প্রথম রেকর্ডিং এর মধ্য দিয়ে। প্রথম গান ‘যদি কেউ ধূপ জ্বেলে দেয়। বেতার থেকে টেলিভিশন, তারপর চলচ্চিত্রে গেয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। চলচ্চিত্রে প্রথম গান করেন ১৯৭৬ সালে আব্দুস সামাদ পরিচালিত সূর্যগ্রহণ চলচ্চিত্রে। সুবীর নন্দীর মৃত্যুতে; গোটা বাংলাদেশ জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন