সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ভবিষ্যতের ভূত মুখ পোড়াল রাজ্য সরকারের

6219
সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ভবিষ্যতের ভূতকে ২০ লক্ষ টাকা জরিমানা দেবে মমতা সরকার/The News বাংলা
সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ভবিষ্যতের ভূতকে ২০ লক্ষ টাকা জরিমানা দেবে মমতা সরকার/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

ভবিষ্যতের ভূত ছবির প্রদর্শন কোন ভাবেই বন্ধ করা যাবে না জানিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট। শুক্রবার রাজ্য সরকারকে নোটিশ পাঠিয়ে এমনই নির্দেশ দিল শীর্ষ আদালত। সেই নির্দেশ মত,ভবিষ্যতের ভূত ছবির প্রদর্শন অবিলম্বে শুরু করতে হবে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ভবিষ্যতের ভূত মুখ পোড়াল রাজ্য সরকারের।

এদিন সুপ্রিম কোর্টে বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের বেঞ্চ রায় দিয়েছেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভবিষ্যতের ভূত ছবির প্রদর্শন চালু করতে হবে। রাজ্য সরকারকে পাঠানো নোটিশে শীর্ষ আদালত নির্দেশ দিয়েছে, এই ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে হবে মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব এবং ডিজিপি কে।

আরও পড়ুনঃ অর্জুনকে ওপেন চ্যালেঞ্জ অভিষেকের, দীনেশ ত্রিবেদীকে ২ লাখ ভোট জেতাব

ভবিষ্যতের ভূত ছবিটি ১৫ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাওয়ার পরে আচমকা একদিনের মধ্যেই কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে ভবিষ্যতের ভূত ছবির প্রদর্শন বন্ধ করে দেওয়া হয়। ছবিটি মুক্তির কিছুদিন আগে এক সাংবাদিক সম্মেলনে পরিচালক বলেছিলেন প্রথম ছবি ‘ভূতের ভবিষ্যৎ’-এর সিক্যুয়েল একেবারেই নয় এই ছবিটি। এই ছবিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক বিষয়কে ভূতেদের মুখে সংলাপের মধ্য দিয়ে তুলে ধরতে চেয়েছিলেন তিনি। আর সম্ভবত তার জন্যই এবার তাঁকে বিপাকে পড়তে হয়েছিল বলে ধারণা।

আরও পড়ুনঃ মমতার প্রার্থী তালিকা নিয়ে গোপনে ক্ষোভ বাড়ছে জেলায় জেলায়

১৫ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার মুক্তি পাবার পরে অনীক দত্তের ‘ভবিষ্যতের ভূত’ সিনেমাটি ১৬ তারিখেই শহরের সিঙ্গেল স্ক্রিন ও মাল্টিপ্লেক্স গুলিতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এবিষয়ে পরিচালক অভিযোগ করেছিলেন,ছবিটি সিবিএফসি-র ছাড়পত্র পেয়েছে বলে সমস্যা হওয়ার কোনও কারণ নেই। তার পরও ছবিটি কী কারণে হল থেকে সরানো হল, তা নিয়ে তাঁকে প্রশাসনের তরফে কিছু জানানো হয়নি।

আরও পড়ুনঃ পশ্চিমবঙ্গে নজিরবিহীন ৭ দফা ভোটে সুবিধা বিজেপির

সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পাওয়ার পরে রিলিজ হওয়ার সিনেমাটি স্যোশাল মিডিয়ায় যথেষ্ট প্রশংসিত হয়েছে। ১৬ ফেব্রুয়ারি বিকেলে দর্শকরা ছবিটি দেখতে গেলে তাঁদের প্রেক্ষাগৃহ কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেন, সিনেমাটি উঠে গিয়েছে। আবার কোথাও কোথাও দর্শকদের শুনতে হয়ে, প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে সিনেমার প্রদর্শন বন্ধ রাখা হয়েছে।

বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠেছিল, সেন্সর বোর্ড কেন এধরণের সিনেমাকে ছাড়পত্র দিল? আর একবার ফিল্ম সেন্সর বোর্ড ছাড়পত্র দেবার পর কোন অধিকারে পুলিশ ফিল্ম নিয়ে জানতে চায়? অন্য দিকে, ‘ভবিষ্যতের ভূত’ প্রেক্ষাগৃহে ফেরানোর দাবিতে প্রতিবাদ মিছিলে শামিল হন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অপর্ণা সেনের মতো বিশিষ্টজন। ছবি প্রদর্শন বন্ধ রাখার প্রতিবাদে সোচ্চার হয় সোশ্যাল মিডিয়াও।

আরও পড়ুনঃ বাংলার কোন লোকসভা আসনে কবে ভোট দেখে নিন

এদিকে ছবির পরিচালক অনীক দত্ত সংবাদমাধ্যমকে জানান, ছবিটি সিবিএফসি-র ছাড়পত্র পেয়েছে বলে সমস্যা হওয়ার কোনও কারণ নেই। তার পরও ছবিটি কী কারণে হল থেকে সরানো হল, তা নিয়ে তাঁকে প্রশাসনের তরফে কিছু জানানো হয়নি।

সুপ্রিম কোর্টের এই নির্দেশে মুখ পুড়ল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের। ইতিমধ্যেই মিমি ও নুসরত এই নিয়ে মুখ না খোলায় সমালোচনার মুখে পরেছে তারাও।

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন