সুপ্রিম কোর্টেও অভিভাবকদের কাছে হারল বেসরকারি স্কুল, ২০ শতাংশ স্কুল ফি মকুব

1717
সুপ্রিম কোর্টেও অভিভাবকদের কাছে হারল বেসরকারি স্কুল, ২০ শতাংশ স্কুল ফি মকুব
সুপ্রিম কোর্টেও অভিভাবকদের কাছে হারল বেসরকারি স্কুল, ২০ শতাংশ স্কুল ফি মকুব

সুপ্রিম কোর্টেও অভিভাবকদের কাছে; হারল বেসরকারি স্কুল। ২০ শতাংশ স্কুল ফি মকুব। বেসরকারি স্কুলের টিউশন ফি মকুব নিয়ে; কলকাতা হাইকোর্টের রায় বহাল রাখল সুপ্রিম কোর্ট। এই রায়ের ফলে স্কুল ফি নিয়ে; বড়সড় স্বস্তি অভিভাবকদের। এর আগে রাজ্যের ১৯ টি স্কুল; সুপ্রিম কোর্টে মামলা করে। তাদের যুক্তি ছিল, স্কুলের ফি যে ভাবে ২০ শতাংশ কমানোর কথা বলা হয়েছে; তা আইনত সম্ভব নয়। তবে, হাইকোর্টের রায়; বহাল রাখে দেশের শীর্ষ আদালত। চলতি মাসের ১৩ তারিখ কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশ দেয়; এ বছরের এপ্রিল থেকে স্কুল না খোলা পর্যন্ত; সব বোর্ডের ১৪৫টি বেসরকারি স্কুল ন্যূনতম ২০ শতাংশ ফি মকুব করবে। বর্তমান অর্থবর্ষে কোনও ফি বৃদ্ধি করা যাবে না।

হাইকোর্টের কোনও ক্ষমতা নেই; স্কুলের ফি কমানোর। সেই যুক্তি খারিজ করে দেয়; সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতিরা। রাজ্য শুধুমাত্র একটি নির্দেশিকা দিয়েছিল; স্কুলের ফি কমানোর। লকডাউনের মধ্যে লাইব্রেরি, স্পোর্টস, ল্যাবেরোটরির মতো যে পরিষেবা পড়ুয়ারা পায়নি; তার জন্য টাকা নেওয়া যাবে না। করোনা পরিস্থিতিতে স্কুলগুলিকে তাদের মুনাফা; ৫ শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে হবে।

আরও পড়ুনঃ মমতার দেওয়া পুজোর অনুদান ৫০,০০০ টাকার চেক বাউন্স, টাকা পাচ্ছেন না পুজো উদ্যোক্তারা

কোনও স্কুল ২০২০-‘২১ অর্থবর্ষে; কোনও শিক্ষক বা অশিক্ষক কর্মীর বেতন বৃদ্ধি করলে; তা ফি থেকে নেওয়া যাবে না। মামলার পরবর্তী শুনানিতে; এই বিষয়ে স্থির হবে। এ দিন অভিষেক মনু সিংভি; কপিল সিব্বলের মত; বিখ্যাত আইনজীবীরা বেসরকারি স্কুলের হয়ে সওয়াল করেন।

২০ শতাংশ ফি মকুব সংক্রান্ত, হাইকোর্টের এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে; সর্বোচ্চ আদালতে যায় কয়েকটি বেসরকারি স্কুল। বুধবার সেই মামলায়, হাইকোর্টের নির্দেশই বহাল রাখল সর্বোচ্চ আদালত। ১৩ অক্টোবরের রায়ে হাইকোর্ট জানিয়েছিল; করোনা কালে আর্থিক সঙ্কটে থাকা কোনও অভিভাবক; স্কুল ফি-র ২০ শতাংশের বেশি ছাড় দাবি করতে পারেন। সেক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া যায় কিনা তা খতিয়ে দেখতে; ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করেছিল হাইকোর্ট। সুপ্রিম কোর্ট অবশ্য ২০ শতাংশের বেশি ফি ছাড়ের বিষয়ে; স্থগিতাদেশ দিয়েছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন