“মমতাকে ব্রেনোলিয়া খাওয়ান, তাহলে মনে পড়বে মুকুল কোন দলে”, কুণালকে পাল্টা শুভেন্দু

7983
স্মতিশক্তি ফেরাতে ব্রেনোলিয়া খাওয়া কার দরকার, শিশির অধিকারী না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের
স্মতিশক্তি ফেরাতে ব্রেনোলিয়া খাওয়া কার দরকার, শিশির অধিকারী না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

বাংলার রাজনীতিতে এখন; ব্রেনোলিয়া লড়াই। “আপনার নেত্রী মমতাকে ব্রেনোলিয়া খাওয়ান; তাহলে মনে পড়বে মুকুল কোন দলে”; কুণালকে পাল্টা দিলেন শুভেন্দু। স্মৃতিশক্তি ফেরাতে, শুভেন্দু অধিকারীর বাবা শিশির অধিকারীকে, ব্রেনোলিয়া খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। এবার পাল্টা কুণালকে একহাত নিলেন; বিজেপি বিধায়ক শুভেন্দু। তৃণমূল নেত্রীকে কটাক্ষ করে, তিনিও পাল্টা মমতাকে ব্রেনোলিয়া খাবার পরামর্শ দেন। তিনিও জানতে চান, মুকুল রায় কোন দলে আছেন; তা কি ভুলে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? স্মতিশক্তি ফেরাতে ব্রেনোলিয়া খাওয়া কার দরকার; শিশির অধিকারী না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের?

দলত্যাগ বিরোধী আইনে, তৃণমূল সাংসদ ও বিজেপিতে যোগ দেওয়া; শিশির অধিকারী ও সুনীল মণ্ডলের সাংসদ পদ বাতিলের দাবিতে; লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লাকে চিঠি দিয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। শিশির অধিকারীর কাছে, নিজের রাজনৈতিক অবস্থান; স্পষ্ট করতে জবাব চান স্পিকার। লোকসভার স্পিকারের চিঠির উত্তরে; সময় চেয়েছেন শিশির অধিকারী। এরপরেই শিশিরকে কটাক্ষ করেন; কুণাল ঘোষ।

এই বিষয়ে পড়ুনঃ কোন দলে আছেন মনে করতে পারছেন না শিশির, ব্রেনোলিয়া খাওয়ার পরামর্শ দিলেন কুণাল

সাংসদ শিশির অধিকারীকে কটাক্ষ করে কুণাল বলেন; “একজন বর্ষীয়ান সাংসদের নিজের দলীয় অবস্থান; স্পষ্ট করতে এতো সময় লাগছে; এটা আশ্চর্যের বিষয়। তিনি কেন মনে করতে; পারছেন না? ভোটের সময় তৃণমূলের বিরুদ্ধে; বিজেপির হয়ে আক্রমণ শানিয়েছিলেন উনি। আর এখন সময় চাইছেন। ওনার স্মৃতিশক্তি চাঙ্গা করতে; ব্রেনোলিয়া খাওয়া প্রয়োজন”।

আরও পড়ুনঃ “আমাদের ভয়ে কাঁপছেন বিপ্লব দেব, এখানেও বড় খেলা হবে” দাবি দেবাংশুর

এদিকে একই ভাবে বিজেপির টিকিটে, কৃষ্ণনগর উত্তর বিধানসভা থেকে জিতে; তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন মুকুল রায়। বিরোধীদের চেয়ারম্যান হওয়ার জায়গায়; শাসকদলে থেকেও চেয়ারম্যান হয়েছেন বিধানসভার পাবলিক একাউন্ট কমিটির। তাঁর সামনেই তৃণমূলে যোগ দিলেও; “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেছেন; মুকুল বিজেপির বিধায়ক”। তাই কুণালের এই কথার উত্তরে, বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী পাল্টা বলেছেন; “আপনার নেত্রী মমতাকে ব্রেনোলিয়া খাওয়ান; তাহলে ওনার মনে পড়বে মুকুল রায় কোন দলে আছেন”। সবমিলিয়ে, বাংলার রাজনীতি এখন স্মৃতি ফেরাতে; একে অপরকে ব্রেনোলিয়া খাওয়াতে ব্যস্ত।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন