“যাঁরা বাবাকে সরালেন, তাঁরাই তিনমাসের মধ্যে সরে যাবেন”, বি’স্ফোরক শুভেন্দু

624
"যাঁরা বাবাকে সরালেন, তাঁরাই তিনমাসের মধ্যে সরে যাবেন", বি'স্ফোরক শুভেন্দু

“যাঁরা বাবাকে সরালেন, তাঁরাই তিনমাসের মধ্যে সরে যাবেন”; ফের বি’স্ফোরক শুভেন্দু। শুভেন্দু অধিকারী বিজেপি যোগ দেবার পরেই; একের পর এক কোপ নেমে এসেছে; পূর্ব মেদিনীপুরের অধিকারী পরিবারের উপর। মঙ্গলবারই, দিঘা-শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদ থেকে; সরানো হয় শিশির অধিকারীকে। আর বুধবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি পদ থেকে; সরিয়ে দেওয়া হল শিশির অধিকারীকে। শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপি যোগদানের পরই; কড়া হচ্ছিল তৃণমূল। এর আগে কাঁথি পুরসভার প্রশাসক পদ থেকে; শুভেন্দুর ভাই সৌমেন্দু অধিকারীকে সরানো হয়েছিল। এবার ডিএসডিএ ও জেলা সভাপতি পদ থেকে; সরিয়ে দেওয়া হল বর্ষীয়ান নেতা শিশির অধিকারীকে।

আর দুজায়গাতেই নতুন পদে যাঁদের বসানো হয়েছে; তাঁরা বরাবর অধিকারী পরিবারের বিরুদ্ধ পক্ষ বলেই পরিচিত। দিঘা-শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদ থেকে; শিশির অধিকারীকে সরিয়ে; নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিযুক্ত হলেন অখিল গিরি। আর পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি পদ থেকে শিশিরকে সরিয়ে; সেখানে নিয়ে আসা হল সোমেন মহাপাত্রকে। তিনিও জেলায়, শুভেন্দু অধিকারী বিরুদ্ধ পক্ষ বলেই পরিচিত।

আরও পড়ুনঃ শুভেন্দু বিজেপিতে, বাবা শিশিরকে জেলা সভাপতির পদ থেকে সরালেন মমতা

জেলা সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে; তৃণমূলের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার চেয়ারম্যান করা হল শিশির অধিকারীকে। যেটা তাঁর পক্ষে অত্যন্ত অপমানকর বলেই মনে করছে; বাংলার রাজনৈতিক মহল। জেলার নতুন সভাপতি হলেন সোমেন মহাপাত্র। সোমেন মহাপাত্র একাধারে রাজ্যের মন্ত্রীও। শিশির অধিকারীকে পূর্ব মেদিনীপুরের জেলা সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে; দলে তাঁর সব ক্ষমতা খর্ব করা হল। গতকালই শিশির অধিকারীর প্রশাসনিক ক্ষমতা; খর্ব করা হয়েছিল। ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতে; তাঁর সাংগঠনিক ক্ষমতাও খর্ব করা হল তৃণমূলের তরফে।

এ প্রসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী বলেন; “আমি চাইব আমার বাবা মা সুস্থ থাকুক। ওরা কোম্পানির চাকর খোঁজে। অন্য কাউকে পেয়ে যাবে। আমি ওই দল ছেড়ে দিয়েছি। আমি বিশেষ কিছু বলব না”। রাজনৈতিক মহল বলছে, শুভেন্দু কাণ্ডের মৌনতার কারণেই; অধিকারীদের ক্ষমতা ছাঁটা হচ্ছে। সৌমেন্দু অধিকারীকে সরানোর পরে; তিনি দাদা শুভেন্দুর হাত ধরে বিজেপিতে গেছেন। এবার বাবাও কি মেজ ছেলের হাত ধরে বিজেপিতে? এটাই এখন বড় প্রশ্ন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন