দ্বিতীয় বৈঠকেও জট কাটল না, শুভেন্দুর শর্ত মানা সম্ভব নয়, জানিয়ে দিল তৃণমূল

1911
দ্বিতীয় বৈঠকেও জট কাটল না, শুভেন্দুর শর্ত মানা সম্ভব নয়, জানিয়ে দিল তৃণমূল
দ্বিতীয় বৈঠকেও জট কাটল না, শুভেন্দুর শর্ত মানা সম্ভব নয়, জানিয়ে দিল তৃণমূল

দ্বিতীয় বৈঠকেও জট কাটল না; শুভেন্দুর শর্ত মানা সম্ভব নয়; জানিয়ে দিল তৃণমূল। শুভেন্দু সৌগত দ্বিতীয় বৈঠকেও; বরফ গলল না। প্রায় দেড় ঘণ্টা চলল; শুভেন্দু-সৌগত ‘হাইভোল্টেজ’ বৈঠক। তাতেও অবশ্য পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর; ‘মানভঞ্জন’ করতে পারল না তৃণমূল কংগ্রেস। সূত্র মারফত এমন খবরই মিলেছে। কলকাতায় ফের শুভেন্দুর সঙ্গে সৌগতর বৈঠকে, কি মিলবে রফাসূত্র? সেই দিকেই তাকিয়ে ছিল; তৃণমূল ও বিজেপি দুদলই। রফাসূত্রের খোঁজে, সোমবার সন্ধ্যায়; ফের শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে; তৃণমূলের প্রবীণ নেতা তথা সাংসদ সৌগত রায়ের বৈঠক হল। কিন্তু এই দ্বিতীয় বৈঠকও; নিস্ফলা থেকে গেছে; এমনটাই জানা যাচ্ছে।

রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দুর রাজনৈাতিক অবস্থান নিয়ে; কিছুদিন ধরেই ধোঁয়াশা তৈরি হচ্ছে। রাজ্যের নানা জায়গায় তাঁর নামে পোস্টার পড়ছে। পোস্টারে থাকছে না তৃণমূলের উল্লেখ। সম্প্রতি বেশ কিছু সভাও করেছেন শুভেন্দু। সেগুলির কোনওটিই তৃণমূলের ব্যানারে হয়নি। এরপরেই শুভেন্দুর মন বোঝার চেষ্টা, কিছুদিন ধরেই; শুরু করেছে তৃণমূল। শুভেন্দুর সঙ্গে আলোচনার দায়িত্বে; রয়েছেন সৌগতই। এদিন দ্বিতীয় বৈঠকেও; বরফ গলে নি। শুভেন্দুর সব শর্ত মানা সম্ভব নয়; তা দলের পক্ষ থেকে তাঁকে পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন সৌগত।

আরও পড়ুনঃ পূর্ব মেদিনীপুর তৃণমূলে বি’দ্রোহ, অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করে, দল ছাড়ছেন শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ

প্রথম বৈঠকেই, ৪ জেলায় পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব; ফেরত চাওয়ার শর্ত দিয়েছিলেন শুভেন্দু। তবে, পর্যবেক্ষক পদ ফেরাতে রাজি নন মমতা; এবার সিদ্ধান্ত নিতে হত শুভেন্দুকেই। জেলায় জেলায় পর্যবেক্ষকের পদ তুলে দেবার পর; একা শুভেন্দুর জন্য, কোনরকমেই তা ফিরিয়ে আনতে রাজি নন মমতা। সেটা জানিয়েও দেওয়া হয়েছে; শুভেন্দুকে। সেই সব বিষয় নিয়েই; ফের বৈঠক হয়। কিন্তু বেরোয় নি; কোন সমাধান। আবার শুভেন্দু-সৌগত বৈঠক; হতে পারে বলে জানা গেছে।

এদিকে, পূর্ব মেদিনীপুর তৃণমূলে বি’দ্রোহ, অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করে; দল ছাড়ছেন শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ, তৃণমূল নেতা সিরাজ খান; যিনি বর্তমানে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ। ২৫ নভেম্বর মেচেদায় বিজেপির কর্মসূচী; সেখানেই তিনি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন। তিনি তৃণমূলের বিরুদ্ধে; নিজের ক্ষো’ভ উ’গরে দেন। “পিকের এজেন্সি দিয়ে দল চালালে; সেই দলে কেউ থাকবে না”; পরিষ্কার জানিয়েছেন সিরাজ খান।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন