চা বানিয়েই প্রধানমন্ত্রী, ভোটে জিততে কি চা ফর্মুলাই বেছে নিলেন মমতা

316

চা বানিয়েই প্রধানমন্ত্রী; গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একই পথেই কি এবার; বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার ‘চা ফর্মুলা’; কি পারবে বাংলার দিদিকে দিল্লীর গদি দিতে? প্রশ্নে ছেয়ে গেছে গোটা সোশ্যাল মিডিয়া। অতীতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী চা বিক্রি করতেন; সেখান থেকেই সোজা দিল্লীর শীর্ষে। সেই ফর্মুলাই কি এবার ব্যবহার করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়!

বুধবার দিঘায় এক রাজনৈতিক সভায় যোগ দেওয়ার ফাঁকেই বানিয়ে ফেললেন চা! সেই ভিডিও ভাইরাল হয় কয়েক মুহূর্তে। তারপর থেকেই কৌতুকের ঝড় ওঠে গোটা সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। বুধবার আবার সেই পুরনো মেজাজে দেখা গেল ‘জননেত্রী’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। হাওড়ার প্রশাসনিক সভা শেষ করেই রওনা দেয় দিঘার দিকে। আঞ্চলিক অধিবাসীদের খবরা-খবর নেওয়ার পাশাপাশি তাঁকে দেখা যায় এক বাচ্ছার সঙ্গে খেলা করতেও।

সমস্যায় বিজেপি, মুকুল রায়ের নামে ঘুষ নিয়ে গ্রেফতার বিজেপি যুব নেতা

এরপর হঠাৎই রাস্তার ধারের চায়ের দোকানে দাঁড়িয়ে পরেন। কার্যত চায়ের দোকানের মালিককে নিজের হাতে ধরে চা বানানো শেখালেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী! মুখ্যমন্ত্রীর হাতে বানানো চা খাওয়ার সুযোগ হয়েছিল তাঁরই দলীয় কর্মীসহ কিছু স্থানীয় বাসিন্দাদের। চা খেতে খেতেই সেরে নেন আলাপ করার রুটিন।

এইবার আর স্থানীয়দের দিকে তেড়ে যায়নি রাজ্য প্রশাসনিক প্রধান। বরং বাড়ি বাড়ি গিয়ে শাড়ি; লজেন্স দিতে দেখা গেল তাঁকে। স্থানীয়দের সঙ্গে গল্প করতে দেখা গেল আগের মেজাজে। নিজেদের পরিচিত ‘দিদি’কে খুঁজে পেয়ে খুশি সবাই।

গত নির্বাচনে সীটের সংখ্যা তলানিতে যাওয়ায় প্রাথমিকভাবে জনসাধারণের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করলেও; দিন এগোনোর সঙ্গে সঙ্গে বাড়াচ্ছেন জনসংযোগ। সম্প্রতিকালে ‘দিদিকে বলো’ প্রকল্পের মাধ্যমে মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁচ্ছে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন। কাজ করছেন একদম মানুষের মধ্যে গিয়ে।

বিরোধীরা কটাক্ষ করে বলছেন; এই চা বানানোর মোক্ষম ফর্মুলা বাতলেছেন প্রশান্ত কিশোর। তাঁর বুদ্ধিতেই কার্যত ‘পুতুল নাচ’ করছেন তৃণমূল প্রধান। তবে দলের ভরা ডুবি বাঁচাতে যে ভাসমান খড়কেও চেপে ধরবে সেটা জানা কথা। কিন্তু এই ‘দিদির হাতে চা খাও’ কত দূর কার্যকর হবে; তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রাজনৈতিক মহল। তবে নিজের পুরনো স্বভাবে ফিরে গিয়ে ভালই করেছেন মমতা; এমনটাই বলছে রাজনৈতিক মহল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন