তৃণমূলের ভাইস চেয়ারপার্সনের মা ও স্বামীর নাম, মমতার বাংলা আবাস যোজনায়

1031
তৃণমূলের ভাইস চেয়ারপার্সনের মা ও স্বামীর নাম, মমতার বাংলা আবাস যোজনায়/The News বাংলা

তৃণমূলের ভাইস চেয়ারপার্সনের মা ও স্বামীর নাম; মমতার বাংলা আবাস যোজনায়। তৃণমূলের গরীব ভাইস চেয়ারপার্সন; এর খবর বাইরে আসতেই হইচই পরে গেছে গোটা জেলায়। আর এই খবরে সরগরম; গোটা রাজ্য রাজনীতি। ঘটনায় তুমুল অস্বস্তিতে রাজ্য তৃণমূল।

দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট পৌরসভার; বিদায়ী পৌরবোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যানের মায়ের নামে এবং স্বামীর নামে বরাদ্দ হয়েছে; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলার আবাস যোজনার হাউস ফর অল প্রকল্পের ঘর। আর এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই; শুরু হয়েছে হইচই। প্রতিবাদ শুরু করেছে বিজেপি ও বাম।

বালুরঘাট পৌর এলাকায়; বাংলার আবাস যোজনার অন্তর্গত; হাউস ফর অল প্রকল্পে ঘর প্রাপকদের তালিকা প্রকাশ্যে আসতেই; বালুরঘাট পৌরসভার বিদায়ী পৌরবোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান বেবি বর্মণ-এর বিরুদ্ধে; স্বজনপোষণ ও দূর্ণীতির অভিযোগ তুলে সরব বিজেপি। ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই বালুরঘাটের মহকুমা শাসক; তথা বালুরঘাট পৌরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যানের কাছে; ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের আর্জি জানিয়ে লিখিত অভিযোগ জমা দিল বিজেপির বালুরঘাট শহর নেতৃত্ব।

বিজেপির বালুরঘাট শহর কমিটির সভাপতি; সুমন বর্মণ-এর অভিযোগ বালুরঘাট পৌরসভার বিদায়ী পৌরবোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান বেবি বর্মণ নিজের স্বামীর নামে; এবং নিজের মা-এর নামে ঘর নিয়েছেন। যেগুলি পাওয়ার কথা গরীব মানুষদের।

বিজেপির বালুরঘাট শহর সভাপতির অভিযোগ; বেবি বর্মণ সরকারি ঘর চুরি করেছেন। তার আরও অভিযোগ; বালুরঘাট শহরের পুরোনো ১৪নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন ওয়ার্ড সভাপতি পুলক রঞ্জন গোস্বামীর ছেলে প্রীতম গোস্বামী-র নামেও পৌরসভা থেকে ঘর বরাদ্দ করা হয়েছে; এবং ঐ ঘরটি ১৫নং ওয়ার্ড এলাকায় একটি জঙ্গলের কোণে তৈরী করা হয়েছে।

তৃণমূল কংগ্রেসের ১৫নং ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি; অধীর শীল-এর নামে ঘর বরাদ্দ করা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে বিজেপি। একই সঙ্গে বিজেপির এও অভিযোগ যে; পদ্মপুকুর এলাকার তৃণমূলের বুথ সভাপতি কিঙ্করী অধিকারির ছেলে অসিত অধিকারির নামেও ঘর বরাদ্দ হয়েছে।

এইভাবে ঘর বরাদ্দ হওয়া নিয়ে; প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি ঐ এলাকার তৃণমূলের মহিলা নেত্রী শিলা ঘোষ; পাকা একতালা ঘর থাকা সত্বেও পৌরসভা থেকে ঘর তৈরির টাকা নিয়ে; দোতালা ঘর নির্মাণ করেছেন বলে বিজেপির বালুরঘাট শহর নেতৃত্ব অভিযোগ তুলেছেন। 
বিজেপির পক্ষ থেকে এই মারাত্মক অভিযোগ তোলার পর; বালুরঘাট পৌরসভার বিদায়ী পৌরবোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান বেবি বর্মণ; এদিন সংবাদমাধ্যমের সামনে পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে বলেন; “আমরা মা ঘর পাবার যোগ্য হলে কেন ঘর পাবেন না’ ? সেই সঙ্গে তিনি এও বলেন; “কোথাও লেখা নেই যে কাউন্সিলারের মা বা স্বামী ঘর পাওয়ার যোগ্য হলেও ঘর পাবে না”। তিনি এও বলেন: “আমার মা ও স্বামী ঘর পাওয়ার যোগ্য বলে ঘর দিয়েছি”।

অপরদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন ওয়ার্ড সভাপতি; পুলক রঞ্জন গোস্বামী-র বক্তব্য; “তার ছেলে প্রীতম গোস্বামী ঘরের জন্য আলাদাভাবে বালুরঘাট পৌরসভার কাছে আবেদন জানিয়েছিল; তাই পৌরসভা কর্তৃক তার ছেলের জন্য ঘর বরাদ্দ হয়”।

যদিও একাধিক স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ; তারা ঘর পাওয়ার যোগ্য হলেও এবং পৌরসভার কাছে তথা বালুরঘাট পৌরসভার বিদায়ী পৌরবোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যানের কাছে ঘর চেয়ে বারবার আবেদন জানিয়েও সরকারি ঘর পাননি। ফলে এমন ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর: আবেদন জানিয়েও সরকারি ঘর না পাওয়া স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে; ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি জেলার রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে সমালোচনার ঝড়। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসায় তুমুল অস্বস্তিতে রাজ্য তৃণমূল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন