তৃণমূলের দ্বিচারিতা, ম্যাঙ্গালুরুতে টাকা বাংলায় ফাঁকা

7184
তৃণমূলের দ্বিচারিতা, ম্যাঙ্গালুরুতে টাকা বাংলায় ফাঁকা/The News বাংলা
তৃণমূলের দ্বিচারিতা, ম্যাঙ্গালুরুতে টাকা বাংলায় ফাঁকা/The News বাংলা

তৃণমূলের দ্বিচারিতা; ম্যাঙ্গালুরুতে টাকা বাংলায় ফাঁকা। এইভাবেই শনিবার তৃণমূলকে আক্রমণ করল বিজেপি। কর্নাটকের ম্যাঙ্গালুরুতে নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে নিহত; ২ জনের পরিবারের হাতে ৫ লাখ টাকার চেক তুলে দিল তৃণমূল। শনিবার সকালে প্রাক্তন সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদীর নেতৃত্বে; তৃণমূলের এক প্রতিনিধিদল সেখানে যায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বৃহস্পতিবারই ঘোষণা করেছিলেন; নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার কথা। এদিন নিহত ২ জনের পরিবারের হাতে তৃণমূল টাকা তুলে দেবার পরেই; শুরু হয়ে গেছে তুমুল বিতর্ক।

এবছরের ডিসেম্বরের ১৯ তারিখে সিএএ এবং এনআরসি’র বিরুদ্ধে বিক্ষোভে; গুলিবিদ্ধ হয়ে কর্ণাটকের ম্যাঙ্গালুরুতে দুজন নিহত হন। তারা হলেন জালিল কুদ্রোলি (৪৯) এবং নওশিন বেনগ্রে (২৩)। ম্যাঙ্গালুরুতে এনআরসি বিরোধী মারমুখি হিংস্র জনতাকে; ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ গুলি চালায়। তাতে নিহত হন এই ২ জন। দুই পরিবারের হাতে ৫ লক্ষ টাকা করে দেয় তৃণমূল। আর এখানেই উঠে গেছে প্রশ্ন।

আরও পড়ুনঃ হিন্দুরা অত্যাচারিত, পাকিস্তানের সংখ্যালঘু দরদী মুখোশ খুলে গেল

২০১৮ সালের ২০ সেপ্টেম্বর, এই বাংলার উত্তর দিনাজপুরের দাড়িভিট হাইস্কুলে; শিক্ষক নিযোগকে কেন্দ্র করে ছাত্র বিক্ষোভ হয়। গুলিবিদ্ধ হয়ে রাজেশ ও তাপস নামে দুই ছাত্রের মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় রাজনৈতিক রং পড়ে। রাজ্য ও দেশ তোলপাড় হয়ে যায়। বিজেপি নিহতদের পরিবারকে নিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবিতে আন্দোলনে নামে। তবে এক্ষেত্রে উদাসীন ছিল রাজ্য সরকার তথা তৃণমূল কংগ্রেস।

আরও পড়ুনঃ যদি এখানকার হও তাহলে ভয় কিসের

নিহত দুজনের পরিবারের সদস্যরা দাবি করেন; “পুলিশর গুলিতে মৃত্যু হয়েছে দুই যুবকের”। কিন্তু রাজ্য সরাসরি সেই দাবি উড়িয়ে দেয়। সিআইডি তদন্ত চলে; কিন্তু একবছর পার হয়ে গেলেও, তার রিপোর্টে কী আছে তা আজও রাজ্যবাসীর অজানা। এদিকে নিহতের পরিবার সিবিআই তদন্তের দাবিতে অনড়। হাইকোর্টে চলেছে সেই মামলা। এখনও পর্যন্ত কাদের গুলিতে তাপস ও রাজেশের মৃত্যু হয়েছে সেই রহস্য অধরা। মেলে নি কোন ক্ষতিপূরণও।

কর্নাটকের ম্যাঙ্গালুরুতে নিহত দুইজন মুসলিম ধর্মের বলেই কি; তৃণমূলের এই সহানুভূতি? আর উত্তর দিনাজপুরের দাড়িভিট হাইস্কুলে মৃত দুইজন হিন্দু বলেই কি; তৃণমূলের কোন সহানুভূতি নেই? তবে বিজেপির এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন