তৃণমূল নেতা খু’ন, অথচ ১১ বছর ধরে চুপ তৃণমূল নেতা মন্ত্রীরা

56
তৃণমূল নেতা খু'ন, অথচ ১১ বছর ধরে চুপ তৃণমূল নেতারা
তৃণমূল নেতা খু'ন, অথচ ১১ বছর ধরে চুপ তৃণমূল নেতারা
Simple Custom Content Adder

তৃণমূল নেতা খু’ন; অথচ ১১ বছর ধরে চুপ তৃণমূল নেতা-মন্ত্রীরা। কি অদ্ভুত না!? তৃণমূল নেতা খু’ন, অথচ ১১ বছর ধরে আন্দোলন নেই তৃণমূলে; কিন্তু কেন? কোথাও একটা কথা নেই; প্রতিবাদ আন্দোলন নেই। উল্টে ১১ বছর ধরে, মৃত তৃণমূল নেতার স্ত্রী-কন্যা; বিচারের জন্য ছুটে বেড়াচ্ছেন আদালতে। নিজেদের নেতা খুনের এতবড় ইস্যুতে; তৃণমূল একেবারে মুখ বন্ধ করে রেখেছে! দলের নেতার প্রকাশ্যে হত্যা নিয়ে, দলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ ও সোশ্যাল মিডিয়া কাঁপানো দেবাংশু ভট্টাচার্যও একেবারেই স্পিকটি নট! ব্যাপারটা কি!?

২০১১ বিধানসভা ভোট; ১৮ই এপ্রিল থেকে ১০ই মে। রাজ্য তখন কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের হাতে। ভোটের ডামাডোলের সুযোগ নিয়েছিল দুষ্কৃতীরা। ২০১১ সালের ৬মে খু’ন হন; বালির তৃণমূল নেতা তপন দত্ত। আর ২০মে ২০১১; বাংলায় পরিবর্তনের সরকার ক্ষমতায় আসে। মুখ্যমন্ত্রী শপথ নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। না, তারপরেও ১১ বছরে নিজের দলের নেতা খু’নের; কোন কিনারা করতে পারেনি মা-মাটি-মানুষের সরকার।

আসলে এই খু’নের কিনারা হওয়ার কথা ছিলও না। কারণ খু’নের অভিযোগ ওঠে; তৃণমূলেরই একাংশের বিরুদ্ধে। তপন দত্ত হ’ত্যা মামলায়; দুটি চার্জশিট দেওয়া হয়। প্রথমটিতে তৃণমূল নেতা-মন্ত্রী অরূপ রায়ের নাম ছিল; তবে দ্বিতীয় চার্জশিটে মন্ত্রীর নাম, উধাও হয়ে গিয়েছিল। বিষয়টি নজর এড়াননি; হাইকোর্টের বিচারপতি রাজশেখর মান্থার। তপন দত্ত খুনের মামলায় তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে, বিচারপতি রাজশেখর মান্থা বলেন; “এতো ঠাকুর ঘরে কে; আমি তো কলা খাইনির মতো ঘটনা”।

আরও পড়ুন; দলের নেতা খু’নের মামলা সিবিআই হাতে, ঘুম উড়ল তৃণমূল নেতা মন্ত্রীর

এই হ’ত্যার ঘটনায় সিবিআই তদন্তের আবেদন জানিয়ে; হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন তপন দত্তর স্ত্রী প্রতিমা দত্ত। বৃহস্পতিবার বিচারপতি রাজশেখর মান্থা, বালির পরিবেশবিদ তথা তৃণমূল নেতা তপন দত্ত হ’ত্যা মামলায়, সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিলেন। রাজ্য় সিআইডিকে সমস্ত নথি, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার নির্দেশ।

হাওড়ায় জলাশয় বোজানো নিয়ে, আন্দোলন শুরু করেছিলেন তপন দত্ত। “নিজের নেতাদের হাতেই খুন হবার পরে; তৃণমূলের কেউ খোঁজ নিতে আসেননি”; জানিয়ে দেন তাঁর স্ত্রী প্রতিমা দত্ত ও মেয়ে প্রিয়াঙ্কা দত্ত। তবে দলের নেতার খু’ন নিয়ে, ১১ বছর পরেও অদ্ভুত ভাবে নীরব; ঘাসফুল নেতা-কর্মী-সমর্থক-মন্ত্রীরা।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন