অব্যহত মাফিয়ারাজ, উপপ্রধানের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

203
অব্যাহত মাফিয়ারাজ, উপপ্রধানের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ/The News বাংলা
অব্যাহত মাফিয়ারাজ, উপপ্রধানের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ/The News বাংলা

অব্যহত মাফিয়ারাজ; এবার তৃণমূল উপপ্রধানের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশের পর; জমি মাফিয়াদের বিরুদ্ধে পুলিশ প্রশাসনের কড়া পদক্ষেপের পর; কিছুদিন জমি মাফিয়াদের দৌরাত্ম কমে গেলেও; আবার শুরু হয়েছে জমি মাফিয়ারাজ। এবার খোদ তৃণমূল কংগ্রেসের পঞ্চায়েত তথা ফুলবাড়ী দুইয়ের উপপ্রধান বদিউল মোহম্মদ সহ আরও দুজনের বিরুদ্ধে সরাসরি অভিযোগ আনলেন; একই এলাকার বাসিন্দা সায়েদা খাতুন সহ তার ছেলে মেয়েরা।

শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের এনজেপি থানার অন্তর্গত চুনাভাটি এলাকার বাসিন্দা সায়েদা খাতুন ও তার পরিবারের লোকেদের অভিযোগ; এলাকায় তাঁদের পূর্বপুরুষের প্রায় ৫১ কাঠা জমি রয়েছে। তার মধ্যে দশ কাঠা জমি; ইতিমধ্যেই ওই এলাকার পঞ্চায়েত তথা ফুলবাড়ী দুইয়ের উপপ্রধান বদিউল মোহম্মদ ও তার দুই সাগরেদ সের আলী ও আবু মুর্তাজা আলী; নকল কাগজ তৈরি করে দখল করে নিয়েছে।

আরও পড়ুনশিল্পীকে হেনস্থা, মঞ্চে উঠে শুনতে হল অশ্রাব্য গালিগালাজ

পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি; বলে অভিযোগ সায়েদা খাতুন ও তার ছেলে মুক্তার আলীর। তাই নিজের জমি ফিরে পেতে; বর্তমানে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ জানাবেন বলে জানিয়েছেন; সায়েদা দেবী ও তার পরিবারের সদস্যরা।

অন্যদিকে, স্থানীয় পঞ্চায়েত তথা ফুলবাড়ী দুইয়ের উপপ্রধান বদিউল মোহম্মদ জানান; ২০১৮ সালে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে; তিনি ও সের আলী ও আবু মুর্তাজা আলী মিলে ১৮ লক্ষ টাকার বিনিময়ে; এই ১০ কাঠা জমি কিনেছিলেন। যার কাগজপত্র সবই রয়েছে তাঁদের কাছে। মিথ্যা অভিযোগ করছে; ওই পরিবারের লোকেরা। তার নামে মিথ্যে অভিযোগ এনে; দুর্নাম ছড়ানোর চেষ্টার ষড়যন্ত্র চলছে।

খালি পড়ে থাকা জমির একাংশ উপপ্রধান সহ বাকি দুজন নিজেদের বলে যে দাবি করছেন; সেটা কি সত্যিই তাঁদের? নাকি এর মধ্যে অন্য কোনও রহস্য লুকিয়ে রয়েছে। নাকি সত্যি উপপ্রধানকে দুর্নাম করার ষড়যন্ত্র চলছে? প্রশাসন কি আদৌ এই সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসবে? এখন এটাই দেখার বিষয়।

উপপ্রধান ফুলবাড়ী ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত বদিউল মোহম্ম জানিয়েছেন; অভিযোগকারীরা বিজেপির সমর্থক। বিজেপি ষড়যন্ত্র করে তার নামে দুর্নাম ছড়াচ্ছে। তিনি বলেন; যদি অভিযোগকারীদের কাছে জমির কোনও নথি থাকে; তাহলে তারা আদালতের কাছে যেতেই পারে; সে বিষয়ে তিনি সহযোগিতা করবেন বলেও জানিয়েছেন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন