“তোর হাত কেটে নেব, পিষে দেব” শুভেন্দুকে বড় চ্যালেঞ্জ দিলেন কল্যাণ

1010
"তোর হাত কেটে নেব, পিষে দেব" শুভেন্দুকে বড় চ্যালেঞ্জ দিলেন কল্যাণ

বিভিন্ন মন্তব্যের জেরে বিতর্কের কেন্দ্রে তৃণমূল নেতা কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগদানের পর থেকেই কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় একের পর এক ভাষণে আ’ক্রমন করেছেন তাঁকে। রবিবার জাঙ্গিপাড়া সভা থেকে আরও আ’ক্রমনাত্বক হয়ে ওঠেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি শুভেন্দু অধিকারীর হাত কেটে নেবার হু’মকি দেন। সেইসঙ্গে নির্বাচনের দিনক্ষণ স্থির হওয়ার আগেই; জাঙ্গিপাড়ার প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে দেন তিনি। সভামঞ্চ থেকে তিনি ঘোষণা করে দেন; “আগামী নির্বাচনে জঙ্গিপাড়ার প্রার্থী হবেন বর্তমান বিধায়ক স্নেহাশিস চক্রবর্তী”। নির্বাচনের দিণক্ষণ ধার্য হওয়ার আগেই; এভাবে প্রার্থীর নাম ঘোষণা ভালভাবে নেননি তৃণমূল দলের একাংশ।

জাঙ্গিপাড়ার সভা থেকে; শুভেন্দুকে নিশানা করেন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি শুভেন্দু অধিকারিকে উদ্দেশ্য করে বলেন; “রামনবমীর আগেই দেখা হবে; পিষে দেব; হাত কেটে নেব তোর”। শুভেন্দুর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে তিনি বলেন; “লক্ষণ শেঠের পর; কাঁথির মেজবাবু হয়ে ওঠেন হলদিয়ার ডন। জাহাজ থেকে মাল নামার আগেই ১৫-২০% কমিশন নিতেন”।

আরও পড়ুনঃ কৃষকদের বাড়িতে জেপি নাড্ডা, পার্টি অফিসে তুলে নিয়ে এল তৃণমূল

দলবদলের পর; শুভেন্দুর বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন রাজ্যের একাধিক তৃণমূল নেতারা। তার মধ্যে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে নজিরবিহীন আ’ক্রমন করে গেছেন। কয়েকদিন আগেই; ব্যারাকপুরের সভা থেকে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে নিশানা করেন শ্রীরামপুরের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন; “কোনও মা আর মীরজাফর শুভেন্দুর নামে সন্তানের নাম রাখবেন না”।

আরও পড়ুনঃ “চাল, গরু, কয়লা, ত্রিপল, আমফানের টাকা চোর, বাংলার সংস্কৃতি শিখতে হবে মমতার কাছে”, প্রশ্ন জেপি নাড্ডার

অন্যদিকে; বিজেপিতে যোগদান করেই; দলের ও দলের নেতা মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। নাম না করে বারবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোলাবাজ ভাইপো বলে সম্বোধন করেন তিনি। নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগও তোলেন তিনি। নির্বাচনে তৃণমূলকে পরাজিত করাই জে এখন শুভেন্দু অধিকারীর একমাত্র লক্ষ; তা বিভিন্ন সময় স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন