তৃণমূলের আজব আমফান দুর্নীতি, জাকির হোসেনের বাপ অমূল্য বিশ্বাস, কালীপদর ছেলে মণিরুল

26306
তৃণমূলের আজব আমফান দুর্নীতি, জাকির হোসেনের বাপ অমূল্য বিশ্বাস, কালীপদর ছেলে মণিরুল
তৃণমূলের আজব আমফান দুর্নীতি, জাকির হোসেনের বাপ অমূল্য বিশ্বাস, কালীপদর ছেলে মণিরুল

জাকির হোসেনের বাবার নাম অমূল্য বিশ্বাস; শেখ সইদুলের ছেলে পলাশ কর। আবার কালীপদ দাসের ১৩ টি ছেলে মেয়ে। বিভিন্ন ধর্মের; বিভিন্ন বর্ণের। কালীপদ দাসের এক ছেলে শেখ মণিরুল; তো আরেক ছেলের নাম শ্রীকান্ত বোয়াল। কি ভাবছেন, মাথা খারাপ হয়ে গেছে? না, হিন্দু মুসলমান সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নিয়ে স্বপ্ন দেখছি? না, এর কোনটাই নয়। এটা উলুবেড়িয়া ১ নং ব্লকের; আমফান ক্ষতিগ্রস্থদের একটি তালিকা। তৃণমূলের আজব আমফান দুর্নীতির; আর একটি হাস্যকর উদাহরণ। উলুবেড়িয়া ১ নং ব্লকের আমফান ক্ষতিগ্রস্থদের; তালিকা দেখে চক্ষু চড়কগাছ গোটা বাংলার।

উলুবেড়িয়া ১ নং ব্লকের কালীনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে; আমফান ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকা দেখে হাসবেন না বিক্ষোভ দেখাবেন; এখনও বুঝতে পারছেন না স্থানীয় বাসিন্দারা। কালীনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে; আমফান ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকা জুড়ে হিন্দু মুসলিম সম্প্রীতি! তালিকায় আছেনক এক কালীপদ দাস। যার ১৩ জন সন্তান; প্রত্যেকেই পেয়েছেন ২০ হাজার টাকা করে। তবে তার সব ধর্মের ছেলে মেয়ে রয়েছে! তালিকায় তার ছেলেদের নাম, শ্রীকান্ত বোয়াল, শেখ মণিরুল, উত্তম বেরা, মেঘনাদ সামন্ত, তরুণ প্রামাণিক; মেয়েদের নাম রুইয়া বেগম শেখ, মুরশিদা বেগম!

আরও পড়ুনঃ আমফান দুর্নীতি, প্রকাশ্যে কান ধরে মানুষের কাছে ক্ষমা চাইল তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য

কালীনগর এর কালীপদর মত বিচিত্র বাবা; গোটা বিশ্বে নেই। শুধু আছে তৃণমূল পরিচালিত উলুবেড়িয়া ১ নং ব্লকের কালীনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর তৃণমূলের সৌজন্যে; এমন বাবাও দেখল বাংলা। এখানেই শেষ নয়। রাম দাসের বাবার নাম শেখ রফিকুল হাসান; জাকির হোসেনের বাপ অমূল্য বিশ্বাস। আরও আছে, কারোর ৮ টা ছেলেমেয়ে তো কারোর ৯ টা। মিল একটাই, সবাই পেয়েছেন আমফান ক্ষতির ২০ হাজার টাকা করে।

আরও পড়ুনঃ আমফান ক্ষতির টাকা নিজের পুরো পরিবারের সবাইকে দিলেন তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধান

তৃণমূল কর্মী, তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যরাই, টাকা পেয়েছেন বলেই মানুষের অভিযোগ। এদের মধ্যে কারোর দোতলা পাকা বাড়ি; তো কারোর আবার রীতিমতো এসি লাগানো বাড়ি। কালীনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে আমফান ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন, খুশেনেহার শেখ; যার রয়েছে ৪ তলা রাজপ্রাসাদ! তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য শর্মইলা বেগম; ও তার স্বামী শেখ আজহারউদ্দীন টাকা পেয়েছেন। তৃণমূল নেতা আসগর মল্লিক আবার আম্মা মবতন্নেশা বেগমের নামে দুবার টাকা নিয়েছেন।

জানা গেছে, উলুবেড়িয়া ১ নং ব্লকে বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েতে; মোট ২২৫০ জনকে আমফান ক্ষতির ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে। আর তালিকা দেখেই, যে কেউ বুঝে যাচ্ছেন; কি পরিমাণ দুর্নীতি হয়েছে। চুরি করতে গিয়েও ল্যাজেগোবরে হয়েছেন তৃণমূল নেতা নেত্রীরা; এমনটাই অভিযোগ সাধারণ মানুষের। ক্ষুব্ধ এলাকার মানুষ। হাতেনাতে চুরি ধরা পরে যাওয়ায়; অনেক পঞ্চায়েত সদস্যই বাড়ি ছেড়ে গা ঢাকা দিয়েছেন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন