ভরা কোটালের আগেই, ভরদুপুরে বাংলায় ফের ‘টর্নেডো’, আতঙ্কিত মানুষ

661
ভরদুপুরে বাংলায় ফের 'টর্নেডো', আতঙ্কিত মানুষ
ভরদুপুরে বাংলায় ফের 'টর্নেডো', আতঙ্কিত মানুষ

আগামীকাল শুক্রবার ভরা কোটাল। ভরা কোটালের আগেই, ভরদুপুরে বাংলায়; ফের ‘টর্নেডো’, আতঙ্কিত মানুষ। চুঁচুড়া-হালিশহর-অশোকনগরের পর; এবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার সাগরের মন্দিরতলায়; আছড়ে পড়ল টর্নেডো। টর্নেডোর দাপটে হুগলি নদীর জল; বেশ কিছুটা উঁচুতে উঠে যায়; বলেই জানান স্থানীয় বাসিন্দারা। চোখের সামনে টর্নেডো দেখে; রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এলাকাবাসীরা। তবে ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলেই খবর। মাত্র দু সপ্তাহের ব্যবধানে; ফের বাংলায় আছড়ে পড়ল টর্নেডো। ইয়াসের ভয় কাটতে না কাটতেই; হুগলির পাড়ে আবার টর্নেডো।

অশোকনগর, ব্যান্ডেল, হালিশহর, শান্তিপুরের পর; বৃহস্পতিবার দুপুরে টর্নেডো আছড়ে পড়ল; দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার সাগরে। জানা গিয়েছে, এদিন সকালে আচমকা গঙ্গাসাগরের মন্দিরতলার পাশে; হুগলি নদীর উপর তৈরি হয়; একটি আকস্মিক ঘূর্ণাবর্ত। টর্নেডোর দাপটে নদীর জল ঘুরতে ঘুরতে; বেশ কিছুটা উঠে যায় উপরে। নদীর পাড়েই চলছিল; ভাঙন রুখতে কাজ। সেই কর্মীরাই প্রথম দেখতে পান; নদীর মাঝে তৈরি হয়েছে টর্নেডো। এলাকায় মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক।

আরও পড়ুনঃ লক্ষ্য দিল্লি, পুলিশ কনস্টেবল থেকে ১০০ কোটি সম্পত্তির মালিক, কৃষক নেতার সঙ্গে জোট মমতার

তবে সেইসময়েও নদীর পাড়ে জমা হয়ে যায়; উৎসাহী স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রায় আধঘণ্টা ধরে মাঝ নদীতেই; তাণ্ডব চালায় এই ঝড়। শেষে নদীর বুকেই মিলিয়ে যায়; এই টর্নেডো।জানা যাচ্ছে, নদীর জলস্তরের উপর অবস্থানের কারণেই; এলাকায় কোনও ক্ষতি হয়নি। নাহলে এই ঝড়ের যা তীব্রতা ছিল; তাতে মুহূর্তেই লণ্ডভণ্ড করে দিতে পারত এলাকা। সপ্তাহখানেকের ব্যবধানে, বারবার এরকম স্থানীয় টর্নেডোর দাপটে; নতুন করে তৈরি হয়েছে আতঙ্ক।

আরও পড়ুনঃ ভোটের পরেই, বাংলায় শুরু হল মমতার ‘খেলা হবে’ প্রকল্প

২৬ মে ইয়াস ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়ার আগেই; চুঁচুড়া ও হালিশহরে আছড়ে পড়েছিল টর্নেডো। প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল। একাধিক দোকান ও বাড়ি ভেঙে যায়। এরপর অশোকনগরেও তাণ্ডব চালায়; একটি টর্নেডো। নিমেষের মধ্যে; প্রায় ২০-৩০টি বাড়ির টিনের চাল উড়ে যায়। বহু মানুষ আশ্রয়হীন হয়ে পড়েন। অশোকনগরের পাশাপাশি নদিয়ার শান্তিপুরেও; ভোর রাতে টর্নেডোর তাণ্ডব চলে। সেই ঘটনার সপ্তাহ দুয়েক পর; ফের টর্নেডো আছড়ে পড়ল রাজ্যে। শুক্রবার ভরা কোটালের আগে; এই ঘটনা কি আবার ঘটবে; এটাই এখন প্রশ্ন রাজ্যবাসির।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন