‘যৌনতা কেন্দ্রিক পর্যটনে’ বিশ্বের সেরা ২০টি বেড়াতে যাবার জায়গা, প্রথম পর্বে ১০টি

32228
'যৌনতা কেন্দ্রিক পর্যটনে' বিশ্বের সেরা ২০টি বেড়াতে যাবার জায়গা, প্রথম পর্বে ১০টি
'যৌনতা কেন্দ্রিক পর্যটনে' বিশ্বের সেরা ২০টি বেড়াতে যাবার জায়গা, প্রথম পর্বে ১০টি

পর্যটন এখন আর শুধুমাত্র; ঘুরে বেড়ানোর মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। পর্যটনে এখন লেগেছে; উদ্দাম যৌনতার ছোঁয়া। পর্যটন ও সেক্স এর টানে; বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাড়ি জমাচ্ছেন পর্যটকরা। কোন কোন দেশ পছন্দ তাদের? এক নজরে দেখে নিই; যৌনতা কেন্দ্রিক বিনোদনের (Sex Tourism) জন্য বিশ্বের সেরা ২০টি ঠিকানা। প্রথম পর্বে বিশ্বের ১০টি ঘুরতে যাবার জায়গা। দ্বিতীয় পর্বে থাকবে; বাকি আরও ১০টি জায়গার কথা।

দ্বিতীয় পর্ব পড়ুনঃ ‘যৌনতা কেন্দ্রিক পর্যটনে’ বিশ্বের সেরা ২০টি বেড়াতে যাবার জায়গা, দ্বিতীয় পর্বে ১০টি

১) কিউবা
নিসর্গ, সংস্কৃতি ও চুরুটের স্বর্গরাজ্য খ্যাত দ্বীপরাষ্ট্র কিউবায়; প্রতি বছর পাড়ি জমান অজস্র পর্যটক। তবে এদের বড় একটি অংশ আসেন; শুধুই যৌনতার আকর্ষণে। শুধু প্রাপ্তবয়স্ক নয়, মনপছন্দ নাবালক যৌনসঙ্গী; সুলভে মেলে এই দেশে।

২) রাশিয়া
গত এক দশকে রাশিয়ায় দেহ ব্যবসার; রমরমা শুরু হয়েছে। মূলত উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপের অন্যান্য দেশের পর্যটকরাই; এখানে যৌনতার টানে ছুটে আসেন। তবে রুশ যৌন বাজারে দালালদের দাপট বেশি। তাই, দালাল থেকে সাবধান থাকাটা; খুব দরকার।

৩) আর্জেন্টিনা
১৮৮৭ সাল থেকেই এদেশে; বৈধতা পেয়েছে সমকামিতা। এই কারণে আর্জেন্টিনায় সমকামী দেহ ব্যবসায়ীদের; চাহিদা তুঙ্গে। সরকারের পক্ষ থেকেও সমকামী পর্যটকদের আকর্ষণ করতে; নানা উদ্যেগ নেওয়া হয়েছে। যৌন পর্যটনের হাত ধরেই; অর্থনীতি চাঙ্গা রাখে মারাদোনার দেশ।

৪) বুলগেরিয়া
যৌন পর্যটনের পীঠস্থান সানি বিচ রিসোর্ট ঘিরে; তৈরি হয়েছে বাস্তব ও কল্পনার অভাবনীয় মিশেল। শোনা যায়, এই সৈকতে প্রতিদিন কয়েক হাজার; দেহ ব্যবসায়ী ভিড় জমান। তাঁদের অনেকেই আসেন; প্রতিবেশী দেশ থেকেও।

৫) দক্ষিণ কোরিয়া
এদেশে যৌনতা নিয়ে; কোন শুচিবায়ু নেই। ক্ষণিকের শয্যাসঙ্গী জোগাড় করতে; বিশেষ পরিশ্রম করতে হয় না। গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলিতে রয়েছে; একাধিক এসকর্ট সার্ভিসের ব্যবস্থা। হোটেলে কয়েক ঘণ্টার জন্য; ঘর ভাড়াও মেলে সুলভে।

৬) কলম্বিয়া
অন্যান্য দেশের তুলনায় সস্তা বলে; যৌন পর্যটনস্থল হিসেবে ইদানীং জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এই দেশ। দরিদ্র দেশে এসে নামমাত্র খরচে; দেদার ফূর্তি লুটতে প্রতি বছর পাড়ি জমান; ইউরোপ ও আমেরিকার পর্যটকরা।

৭) কম্বোডিয়া
দুনিয়ার অন্যতম বড় যৌন ব্যবসা; চালায় এই দেশ। কিন্তু তার বেশির ভাগই অবৈধ। তবে আইনের ফাঁক গলে, অবাধ যৌনতার হাতছানিতে সাড়া দিতে; প্রতি বছর ছুটে আসেন বিশ্বের কামতাড়িত মানুষ।

৮) প্রাহা
স্লোভাকিয়ার প্রাহা শহর ১৯৮৯ সাল থেকেই; ইউরোপের যৌনতার রাজধানী তকমা পেয়েছে। অসংখ্য জেন্টলম্যানস ক্লাব অথবা রিল্যাক্সেশন ক্লাবে; অল্প খরচে শরীরী বিনোদনের সম্ভার মেলে। হিংসাত্মক ঘটনাও এখানে সংখ্যায় খুব কম।

৯) নেপাল
রাজধানী কাঠমান্ডু এবং পোখরা ও তরাইয়ের শহরাঞ্চলে; দেহ ব্যবসার রমরমা। বাণিজ্য জমে উঠে হোটেলের দামি ঘর থেকে শুরু করে; নিষিদ্ধপল্লির অন্ধকার আস্তানা, এমনকি যৌন ব্যবসায়ীর বারিতেও। কাঠমান্ডুর থামেলে ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে উঠেছে; ম্যাসাজ পার্লার, যেখানে অবৈধ দেহ ব্যবসার পসার সাজানো। এছাড়া বিভিন্ন রেস্তোরাঁর কেবিন ও ডান্স বারগুলিতেও মিলবে; অফুরন্ত দেহজ বিনোদনের সম্ভার।

১০) থাইল্যান্ড
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর থেকে যৌনতার নয়া ঠিকানা হিসেবে; জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে থাইল্যান্ড। ব্যাঙ্ককের বিখ্যাত দপিং পিংদ শো-ই হোক; অথবা বিভিন্ন স্পা-এর ছদ্মবেশে যৌনতার আস্তানা। দেশজুড়ে অবাধ ও নিরাপদ দেহ ব্যবসার; রমরমা বছরভর। তাই দেশটি বিশ্বের নানা দেশের নারী-পুরুষকে; সহজেই আকৃষ্ট করছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন