কাটমানি খেয়ে ও প্রতারণার দায়ে তৃণমূল নেতারা পুলিশি হেফাজতে

280
কাটমানি খেয়ে তৃণমূল নেতারা পুলিশি হেফাজতে/The News বাংলা
কাটমানি খেয়ে তৃণমূল নেতারা পুলিশি হেফাজতে/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

দলের মধ্যে তোলাবাজি বরদাস্ত করা হবে না; অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেবে পুলিশ। ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। সোমবার নজরুল মঞ্চ থেকে তৃণমূল সুপ্রিমো ঘোষণা করেন; দলের কোনও নেতা যদি কাটমানি নেন, তা বরদাস্ত করবেন না। যাঁর দিকে অভিযোগের আঙুল উঠবে, তাঁকে রেয়াত করা হবে না।

এরপরেই ১ কোটি টাকা কাটমানি খাওয়ার অভিযোগে; বুধবার মালদার রতুয়ায় গ্রেফতার করা হয় সুকেশ যাদব নামে এক তৃণমূল নেতাকে। গ্রেফতার করা হয় মিলন মণ্ডলের মতো; হলদিয়ার দাপুটে নেতাকে। পুলিশ সূত্রে খবর, হলদিয়া শিল্পাঞ্চল সহ মহিষাদল এলাকায়; বেশকিছু অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার হয়েছে মিলন মণ্ডল।

আরও পড়ুনঃ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের নির্দেশে অশান্ত ভাটপাড়ায় বিজেপির কেন্দ্রীয় দল

হুগলির রিষড়া পঞ্চাননতলা থেকে; কয়েক লাখ টাকা প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় তৃণমূল নেতা কালাচাঁদ পালকে। রিষড়া বাসিন্দা কালাচাঁদকে বুধবার রাতে; গ্রেফতার করে উত্তরপাড়া থানার পুলিশ। অভিযোগ, উত্তরপাড়ার বাসিন্দা প্রণব দের কাছ থেকে ৯ লাখ টাকা নেন কালাচাঁদ।

টাকা ফেরত চাইলে প্রণব দেকে হুমকি দেন কালাচাঁদ। তারপর প্রণব দেকে মারধরও করা হয়। প্রণববাবুর অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেফতার করা হয়; কালাচাঁদ পালকে। জানা গেছে, প্রতরণার অভিযোগে এর আগেও জেল খেটেছেন কালচাঁদ।

আরও পড়ুনঃ সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকায় বিনা হেলমেটের বাইক ধরার অভিযান পুলিশের

ভোটে হারের কারণ খুঁজতে ও রাজ্য জুড়ে দলের নেতাদের সচেতন করতে; গত সোমবার নজরুল মঞ্চে সভা ডাকেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে নিজের দলের নেতাদের দুর্নীতির বিরুদ্ধেই; মুখ খোলেন তৃণমূল নেত্রী। নেতাদের কাটমানি খাওয়ার জন্যই দলের এই হাল; পরিষ্কার জানিয়ে দেন মমতা।

পুর ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে সমস্ত অভিযোগের তদন্ত করতে নির্দেশ দিয়েছেন মমতা। দুর্নীতিবাজ কাউকেই ছাড়া হবে না; পরিষ্কার জানিয়ে দেন তিনি। মমতার এই ঘোষণার পরে; মঙ্গলবার থেকেই কাটমানি ফেরত নিতে; বিভিন্ন জেলায় তৃণমূল নেতার বাড়িতে হাজির সাধারণ মানুষ।

আরও পড়ুনঃ মুসলিম তোষণ না করতে মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে খোলা চিঠি মুসলিম বুদ্ধিজীবীদের

অভিযোগ অস্বীকার করেও; মানুষের সঙ্গত ক্ষোভ চাপা দিতে পারেননি তৃণমূল নেতারা। মুখ্যমন্ত্রীর এমন ঘোষণার পরই; জেলায় জেলায় তত্পরতা শুরু হয়ে যায়। জেলায় জেলায়; গ্রেফতার হতে থাকে তৃণমূল নেতারা।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন