খালের জলে একের পর এক ডলফিনের মৃত্যু, উঠছে প্রশ্ন

208
খালের জলে একের পর এক ডলফিনের মৃত্যু, উঠছে প্রশ্ন/The News বাংলা
খালের জলে একের পর এক ডলফিনের মৃত্যু, উঠছে প্রশ্ন/The News বাংলা

খালের জলে একের পর এক ডলফিনের মৃত্যু; উঠছে প্রশ্ন। একই দিনে; দুই জেলার দুই প্রান্তে উদ্ধার ডলফিন। তবে একজন মৃত; অপরজন জীবিত। কিন্তু কিভাবে পর পর দুটি ডলফিন; সমুদ্রের খালে প্রবেশ করল তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। তাহলে কি দূষণের কারণে নদীর জল নোনা হতে শুরু করেছে; যে কারণে নদী সংলগ্ন খালে ঢুকে পড়ছে; একের পর এক ডলফিন। সমুদ্রের পূর্ব মেদিনীপুরের ভূপতিনগর এলাকায়; উদ্ধার হওয়া ডলফিনটিরও বাঁচার কথা ছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হয় নি। মাছ ধরার ঝালে আটকেই; তার মৃত্যু হয়; অনুমান বনকর্মীদের।

শনিবার সকালে; নিতুড়িয়া খালে ভেসে ওঠে; তার মৃতদেহ। পর্যাপ্ত খাবার ও পরিষ্কার জলের অভাবেও; ডলফিনটির মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে; এমন সন্দেহও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। বৃহস্পতিবার নিজের দল থেকে; বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়; ডলফিলটি। পথ ভুলে চলে আসে; ভূপতিনগরের মাধাখালির নদী খালে। শুক্রবার সকালে তাকে দেখতে ভিড় জমে যায়।

আরও পড়ুন ভারতীয় সেনা অফিসারদের ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপ না করার নির্দেশ

বন বিভাগের কর্মীরা ডলফিনটির ওপর নজর রাখার চেষ্টা করেন। পাশাপাশি রসুলপুর নদীতে ফিরিয়ে দেওয়া হবে বলেও; সিদ্ধান্ত নেন বনকর্মীরা। বনকর্মীরা জানতেন; এমনটা করতে পারলে; তাকে নিজের যায়গায় অর্থাৎ সমুদ্রে ফিরিয়ে দেওয়া যাবে। কিন্তু শনিবারই তার মৃত দেহ দেখতে পান তারা। ডলফিনের মৃত্যুতে; বনকর্মীদের নজরদারি নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। যদিও বনকর্মীদের দাবি; অপরিস্কার জল ও পাতা জালে লেগেই মারা গিয়েছে প্রাণীটি।

অন্যদিকে, পূর্ব মেদিনীপুরের পর; হাওড়ার শ্যামপুরে একই দিনে উদ্ধার হয় গাঞ্জেস ডলফিন। শনিবার সকালে; অনন্তপুর গ্রাম সংলগ্ন খালের কালভার্টের কাছে ডলফিনটি আটকে পড়ে। তাকে দেখতে ভিড় জমায়; স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর দেওয়া বন দফতরে, খালের জল ভাঁটার টানে ক্রমাগত কমতে থাকায়; স্থানীয় বাসিন্দা ও বনদফতরের যুদ্ধকালীন তৎপতায়; ডলফিনটিকে উদ্ধার করে পুনরায় ছেড়ে দেওয়া হয় রুপনারায়ন নদীতে।

পূর্ব মেদিনীপুরের খালে ডলপিনের মৃত্যু হলেও; হাওড়াতে প্রানে বাঁচল ডলপিনটি। প্রসঙ্গত, গত ১৪ই নভেম্বর; পথ ভুলে সমুদ্র থেকে খালের জলে ঢুকে পড়ে; একটি ডলফিন। শ্যামপুরের স্থানীয় বাসিন্দাদের তৎপরতায় ডলফিনটি বেঁচে গেল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন