ব্রহ্মাপুত্র বিশ্বকর্মা তৈরি করেছিলেন বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের নকশা জেনে নিন সেই দেবতার গল্প

277
ব্রহ্মাপুত্র বিশ্বকর্মা তৈরি করেছিলেন বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের নকশা জেনে নিন সেই দেবতার গল্প/The News বাংলা
ব্রহ্মাপুত্র বিশ্বকর্মা তৈরি করেছিলেন বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের নকশা জেনে নিন সেই দেবতার গল্প/The News বাংলা

দেবতাদের শিল্পী হলেন বিশ্বকর্মা। তিনি শুধু শিল্পী নন; তিনি একজন বিখ্যাত স্থপতি। কথিত আছে ব্রহ্মাপুত্র বিশ্বকর্মা পুরো বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের নকশা তৈরি করেছিলেন। দেবলোকে নির্মিত ঈশ্বরদের প্রাসাদে গুলো তৈরি করেন বিশ্বকর্মা। শুধু তাই নয়; দেবতাদের ব্যবহৃত অস্ত্র; রথ ইত্যাদি তৈরির একমাত্র কারিগর হলেন বিশ্বকর্মা। মহাভারত থেকে আমরা জানতে পারি; বিশ্বকর্মা হলেন সমগ্র বিশ্বের শিল্পকর্মের দেবতা। দেবতাদের প্রাসাদ; অলঙ্কার এই সবকিছুর পিছিনেই আছে বিশ্বকর্মার শিল্পবোধ।

পুরানের বিবরন অনুযায়ী; বিশ্বকর্মার চারটি হাত। চার হাতে যথাক্রমে; জলের কলস; বই; দড়ির ফাঁস ও যন্ত্র দেখা যায়। বিশ্বকর্মার মাথায় রাজার মতন মুকুট থাকে। পুরাণ থেকে জানা যায়; প্রজাপতি ব্রহ্মার নাভি থেকে বিশ্বকর্মার জন্ম হয়েছিল। আবার বেদে বিশ্বকর্মাকে অজাত পুরুষ বা সনাতন পুরুষ বলে উল্লেখ করা আছে।

আরও পড়ুনঃ কেন মা কালীর পায়ের নিচে বাবা মহাদেব

বিশ্বকর্মা বহু শিল্প সৃষ্টি করেছেন। ধনরাজ কুবেরের প্রাসাদ; দেবরাজ ইন্দ্রের দেবসভা; ভগবান শ্রীকৃষ্ণের দ্বারকা; পুরির জগন্নাথ বলরাম সুভদ্রার মূর্তি; রামায়নে রাবনের স্বর্ণ লঙ্কা; এসব কিছুর সৃষ্টিকর্তা হিসাবে বিশ্বকর্মার নাম পাওয়া যায়।

শুধু প্রাসাদ বা মূর্তি নয়; মহাদেব শিবের ধণুক; ত্রিশূলও তৈরি করেছেন বিশ্বকর্মা। দেবী দুর্গাকে দেওয়া অভেদ্য কবজও এনারই সৃষ্টি। বিশ্বকর্মার হাতে দাঁড়িপাল্লা দেখা যায়; বলা হয় ঐ দুটি পাল্লা জ্ঞান ও কর্মের প্রতীক। উভয়ের সমতাই তিনি বজায় রেখেছেন।

আরও পড়ুনঃ বৃহস্পতিবার কি ভাবে লক্ষ্মী পুজো করলে, আপনি হতে পারেন লাখপতি

হিন্দু পুরাণ জুড়ে রয়েছে; বিশ্বকর্মার বিভিন্ন নির্মাণ। সত্য, ত্রেতা, দ্বাপর, কলি এই চার যুগ ধরে ছড়িয়ে রয়েছে বিশ্বকর্মার অমর কীর্তি। সত্যযুগে তৈরি করেছিলেন স্বর্গলোক। এখান থেকেই দেবরাজ ইন্দ্র মর্ত্যলোকের শাসন ব্যাবস্থা দেখতেন। ত্রেতা যুগে সৃষ্টি করেন সোনার লঙ্কা। দ্বাপর যুগে সৃষ্টি করেন দ্বারকা। আর কলিযুগের অমরসৃষ্টি হস্তিনাপুর ও ইন্দ্রপ্রস্থ।

হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মশাস্ত্র বেদে; মাত্র তেত্রিশটি দেবতার উল্লেখ থাকলেও হিন্দুরা বিশ্বাস করেন; তাদের দেবতা তেত্রিশ কোটি। বেশির ভাগ দেবতা স্বর্গে বাস করলেও; বেশ কিছু দেবতা এই পৃথিবীতেই বসবাস করতেন বলে কেউ কেউ মনে করেন। এদেরই একজন দলিত গোষ্ঠীভুক্ত দেবতা বিশ্বকর্মা ঠাকুর। বছরের একদিন শিল্পী ও শ্রমজীবী ভক্তেরা বিশ্বকর্মার পূজা করেন ধুমধামের সঙ্গে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন