মমতাকে প্রধানমন্ত্রী দেখতে চেয়ে, দল ছাড়লেন ‘মুকুল ঘনিষ্ঠ’ বিজেপি নেত্রী

1282
মমতাকে প্রধানমন্ত্রী দেখতে চেয়ে, দল ছাড়লেন 'মুকুল ঘনিষ্ঠ' বিজেপি নেত্রী
মমতাকে প্রধানমন্ত্রী দেখতে চেয়ে, দল ছাড়লেন 'মুকুল ঘনিষ্ঠ' বিজেপি নেত্রী

মমতাকে প্রধানমন্ত্রী দেখতে চেয়ে; দল ছাড়লেন ‘মুকুল ঘনিষ্ঠ’ বিজেপি নেত্রী। নির্বাচনে মুখ থুবড়ে পরার পর থেকেই; রাজ্য বিজেপিতে ভাঙন অব্যাহত। মুকুল রায় বিজেপি ছাড়তেই, একে একে দলত্যাগ করে ঘাসফুল শিবিরে ঝুঁকছেন; দলের একাধিক নেতা-নেত্রী। সোমবার সকালে পদত্যাগ করার কথা, নিজেই টুইটে জানালেন; বিজেপির কিষান মোর্চার রাজ্য সম্পাদক দেবযানী দাশগুপ্ত ৷ পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে; দেশের নতুন বাঙালি প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দেখতে চান বলে; এই আইনজীবী স্পষ্ট জানালেন টুইটারে। যদিও দেবযানীর পদত্যাগ নিয়ে; এখনও বিজেপির তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

পেশায় আইনজীবী দেবযানী দাশগুপ্ত ছিলেন; রাজ্যে বিজেপির কিষাণ মোর্চার সম্পাদিকা। মুকুল রায়ের সঙ্গে তাঁর; বরাবরেরই ঘনিষ্ঠতা ছিল। ফলে মুকুলের দলত্যাগের সিদ্ধান্তে প্রভাবিত হন তিনিও। এদিন সকাল নটা নাগাদ নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে, দেবযানী লেখেন; “পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য কিষান মোর্চার সেক্রেটারি পদ থেকে; পদত্যাগ করলাম। এবার দিদিকে ভারতের নতুন বাঙালি প্রধানমন্ত্রী হিসাবে পেতে; নতুন যাত্রার সন্ধানে আছি”।

আরও পড়ুনঃ কোটি টাকার অ্যান্টিক গয়না চুরির অভিযোগ, বৈশালী ডালমিয়ার বিরুদ্ধে

টুইটটিতে দেবযানী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়; মুকুল রায় এবং তৃণমূল কংগ্রেসের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টকে; ট্যাগ করেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে থেকে লড়বেন; বলে স্থির করেছেন তিনি। টুইটে তিনি স্পষ্টই; ‘দিদি’-‘বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ এই বিশেষ শব্দবন্ধের উল্লেখ করেছেন। তবে তৃণমূলে যোগদান নিয়ে; কিছু বলেননি তিনি। তাঁকে দলে নেওয়া নিয়েও; এখনও কিছু জানায়নি তৃণমূলও।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূলে ফের বড় পদ পাচ্ছেন মুকুল, এবারও মমতার ঠিক পরেই

রাজ্য কিষান মোর্চার সম্পাদকের পাশাপাশি; বিজেপির আইনি সেলেরও সদস্য ছিলেন দেবযানী। রাজনৈতিক মহলের ধারনা; মুকুল রায়ের হাত ধরেই তৃণমূলে যোগদান করবেন দেবযানী। তবে সেক্ষেত্রে তৃণমূল সুপ্রিমোর সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। তবে যেভাবে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, বিশ্বজিত দাস ও সব্যসাচী দত্তকে দলে ফিরিয়ে নেওয়া নিয়ে; দলের মধ্যেই ক্ষোভ বিক্ষোভ দানা বাঁধছে; তাতে বিজেপির কাউকে দলে নিতে; অনেকবার ভাববেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন