বাংলার একের পর হাসপাতালের মারাত্মক ভিডিও প্রকাশ্যে, মোবাইল নিষিদ্ধ করল সরকার

2409
বাংলার একের পর হাসপাতালের মারাত্মক ভিডিও প্রকাশ্যে, মোবাইল নিষিদ্ধ করল সরকার
বাংলার একের পর হাসপাতালের মারাত্মক ভিডিও প্রকাশ্যে, মোবাইল নিষিদ্ধ করল সরকার

কোভিড বা করোনা হাসপাতাল এবং এবং অন্যান্য হাসপাতালের স্পর্শকাতর ওয়ার্ডে; মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার। এর ফলে রোগীরা তো বটেই; চিকিৎসক, নার্স, প্যারামেডিক্যাল কর্মী-সহ সব ধরনের স্বাস্থ্যকর্মীই; আর পকেটে, হাতে কিংবা পার্সে মোবাইল সঙ্গে নিয়ে ঢুকতে পারবে না ওয়ার্ডে। নবান্নের নির্দেশে, এ নিয়ে একটি আদেশনামা জারি করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর। বাংলার একের পর হাসপাতালের মারাত্মক ভিডিও প্রকাশ্যে; তাই মোবাইল নিষিদ্ধ করল সরকার; অভিযোগ তুলেছে বিরোধীরা।

বুধবার বিকেলে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে; রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা বলেন; “বিশেষজ্ঞদের মতে; মোবাইল থেকে সংক্রমণের আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি। মোবাইল মারফত করোনা সংক্রমণ ছড়ায় বেশি। তাই হাসপাতালে ল্যান্ডলাইন ফোনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীদের; হাসপাতালে আর মোবাইল ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না”। রাজ্যের সমস্ত করোনা হাসপাতালেই; মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করল রাজ্য সরকার। বুধবার রাতে এই মর্মে নবান্ন থেকে; একটি নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে। সমস্ত জেলার জেলাশাসক, মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক; এবং করোনা হাসপাতালের সুপারদের।

নবান্নের ওই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে; মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কোভিড-১৯ ভাইরাস ছড়াতে পারে। সেই কারণেই সমস্ত করোনা হাসপাতালে; মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওই নির্দেশিকায় জানানো হয় যে; ওই নিয়ম চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী থেকে শুরু করে রোগী; সকলের জন্য প্রযোজ্য। কেউ মোবাইল নিয়ে হাসপাতালের মধ্যে; ঢুকতেও পারবেন না। হাস্পাতালে ওয়ার্ডে ঢোকার আগেই; মোবাইল জমা রাখতে হবে নির্দিষ্ট জায়গায়। তার বিনিময়ে রশিদ দেওয়া হবে। হাসপাতাল থেকে বেরনোর সময়; ওই রশিদ দেখিয়ে মোবাইল ফেরত পাওয়া যাবে।

স্বাস্থ্যভবন সূত্রে খবর; এর জন্য যাতে কারও যোগাযোগ রক্ষায় সমস্যা না-হয়; তা নিশ্চিত করার ব্যবস্থা করছে সরকার। তার জন্য টেলিফোন (বেস-ফোন) ও ইন্টারকমের ব্যবস্থা রাখা হবে। তাতেই অভ্যন্তরীণ সমন্বয় রক্ষা করবেন কর্মীরা। প্রয়োজনে রোগীরাও যাতে বাইরে (মূলত বাড়ি) থেকে আসা ফোন ধরতে পারেন; এবং বাইরে ফোন করতে পারেন, তার সুবিধাও দেওয়া হবে। নয়া নিয়মে, হাসপাতালে বা ওয়ার্ডে প্রবেশের সময়েই; একটি নির্দিষ্ট কাউন্টারে মোবাইল জমা দিয়ে দিতে হবে। বিনিময়ে একটি টোকেন মিলবে। বেরনোর সময়ে সেই টোকেন দেখিয়েই; ফেরত পাওয়া যাবে নিজের মোবাইল সেট।

তবে বিরোধীদের অভিযোগ; রাজ্যের একের পর সরকারি হাসপাতালের চরম অব্যবস্থার ছবি প্রকাশ্যে আসছে; তাই মোবাইল নিষিদ্ধ করল রাজ্য সরকার। অনেকেই অবশ্য মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধ করার নেপথ্যে; অন্যান্য কারণও দেখছেন। কেননা, আরজিকর, হাওড়া হাসপাতাল, এমআর বাঙ্গুরের ওয়ার্ডের; ভিতরকার অব্যবস্থার ছবি তুলে সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় তা ছড়িয়ে দেন অনেকেই। সেই সব ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। তাই অনেকের মতে; ওয়ার্ডের মধ্যেকার ছবি যাতে ক্যামেরাবন্দি না-করা যায়; নিষেধাজ্ঞার সেটাও একটা কারণ।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন