ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সির রিপোর্টে মোদীর বৈদ্যুতিকরনের প্রশংসা

296
Image Source: Google

The News বাংলা, নিউ দিল্লিঃ ‘মোদী সরকারের উদ্যোগে ভারতের সমস্ত গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া, বিশ্বের সফলতম প্রচেষ্টাগুলোর মধ্যে একটি’- ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি তাদের ওয়ার্ল্ড এনার্জি আউটলুক ২০১৮-এর সাম্প্রতিক সমীক্ষায় পর্যবেক্ষণ করে এমনই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। সংস্থাটি উল্লেখ করেছে, পৃথিবীর প্রতিটি মানুষের কাছে কাছে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া একটি উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ, আর সেটি পূরণে অনেকটাই সফল ভারত সরকার।

Image Source: Google

ভারতকে ‘তারকা প্রতিযোগী’ হিসেবে উল্লেখ করে সংস্থাটি আরও জানায়, শক্তি সম্পদকে আরও বেশি করে ব্যবহারযোগ্য করে তোলার জন্য ভারতের প্রতিটি গ্রামে ২০১৮ সালের মধ্যে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার প্রচেষ্টায় ভারত সরকার খুব সফলভাবে তাদের লক্ষ্য পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে। আন্তর্জাতিক স্তরেও এটি একটি বড় পদক্ষেপ।

আরও পড়ুনঃ সব প্রশ্নের জবাব দিতে আসছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জীবনী

সমগ্র এশিয়া মহাদেশের উন্নয়নশীল দেশ গুলোর পরিপ্রেক্ষিতে ২০০০ সাল থেকে এখনও অবধি আরও ৯০০ মিলিয়ন মানুষের কাছে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়েছে। বৈদ্যুতিক সংযোগের বিস্তারের পরিপ্রেক্ষিতে ২০০০ সালে ৬৭ শতাংশ স্থানে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়েছিলো।

আরও পড়ুন: সমালোচনার মধ্যেই রেকর্ড আয়ের লক্ষ্যে মোদীর ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’

২০১৭ সালের মধ্যে ৯১ শতাংশ স্থানে তার বিস্তৃতি লাভ করেছে। এই সামগ্রিক পরিসংখ্যানের বিচারে ৬১% উন্নতি শুধুমাত্র ভারতেই সম্ভবপর হয়েছে, যা আন্তর্জাতিক স্তরেও বিদ্যুৎ পরিসেবার লক্ষ্য পূরণে উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ।

Image Source: Google

উল্লেখ্য, চলতি বছরের এপ্রিল মাসেই ভারত সরকার দেশের প্রতিটি গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা প্রায় ১০০ শতাংশ পূরণ করেছে বলেই দাবি করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। ২০১৫ সালের স্বাধীনতা দিবসের বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উল্লেখ করেছিলেন, আগামী এক হাজার দিনের মধ্যেই দেশের সমস্ত গ্রামীন এলাকায় দীনদয়াল উপাধ্যায় গ্রাম জ্যোতি যোজনার মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করা হবে।

আরও পড়ুন: মোদীর ভারতে সর্দার প্যাটেলের রেকর্ড ভাঙবে ছত্রপতি শিবাজীর মূর্তি

যার লক্ষ্যপূরণের দিন ধার্য করা হয় ২০১৮ সালের ১০ই মে। কিন্তু চলতি বছরের এপ্রিল মাসে নির্ধারিত সময়ের আগেই ৫৯৭,৪৬৪ টি গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়েছে বলে জানানো হয়।

Image Source: Google

বর্তমানে এর পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে ভারত সরকার প্রতিটি গ্রামীন এলাকার বড় বড় প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশাসনিক ভবনগুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার পদক্ষেপ নিয়েছে। যদিও প্রতিটি গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা পূরণে সক্ষম হলেও এই পরবর্তী পদক্ষেপ সফল করা ভারতের মতো সুবিশাল রাষ্ট্রে সময়সাপেক্ষ বলেও উল্লেখ করেছে ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি।

আরও পড়ুন: সুলতানকে নিয়ে বিজেপির বিরোধীতার মধ্যেই টানাপোড়েন কংগ্রেস-জেডিএসের

রিপোর্টে ভারত সরকারের পদক্ষেপ হিসেবে দরিদ্র মানুষের মধ্যে এলপিজি গ্যাসের সংযোগকে সহজলভ্য করে দেওয়ার উদ্যোগকেও প্রশংসা করা হয়েছে৷ এখানে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘ভারতে ২০১৫ সাল থেকে এখনও পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী উজ্বালা যোজনার মাধ্যমে ৫০ মিলিয়ন দরিদ্র গৃহস্থ বিনামূল্যে এলপিজি গ্যাসের সংযোগ পেয়েছে এবং সরকার ২০২০ সালের মধ্যে ৮০ মিলিয়ন গৃহস্থের বাড়িতে এলপিজি গ্যাসের সংযোগ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে’।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন