কোটি কোটি টাকা লোন নিয়ে শোধ না দেওয়ায়, ঋণখেলাপিদের তালিকা প্রকাশ স্টেট ব্যঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার

9654

শুক্রবার স্টেট ব্যঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ঔষধ তৈরী; গয়না ও বিদ্যুৎ সহ বিভিন্ন ব্যবসার ১০ টি বড় বড় সংস্থা; ও তাদের শীর্ষ কর্মকর্তাদের নাম প্রকাশ করে। ইচ্ছাকৃত ভাবে লোন নিয়ে শোধ না দেওয়ায়; তাদের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ ঘোষণা করা হয়েছে।

মূলত মুম্বাইয়ের বেশিরভাগ কোম্পানি লোন শোধ না দেওয়ায়; তাদের কাছ থেকে প্রায় ১৫০০ কোটি টাকা জরিমানা ধার্য করা হয়েছে। লোন শোধ করার জন্য; তাদের বারবার নোটিসও দেওয়া হয়। বলা হয়েছে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে লোন শোধ করার কথা। না হলে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুনঃ মহিলা বক্সারকে হেনস্থা, ফেসবুক পোস্ট দেখেই এক ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার তিন অভিযুক্ত

ইতিমধ্যে এসবিআই তাদের সবাইকে সতর্ক করে দিয়েছে। যদি সেই সব সংস্থা পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে সুদ এবং অন্যান্য চার্জ দিয়ে; দেনা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হয়; তবে কর্নিড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে তাদের বিরুদ্ধে।

তালিকায় সবচেয়ে বড় ৩,৪৭,৩০,৪৬,৩২২ টাকার লোন নিয়ে; শোধ না দেওয়া কম্পানি হল ‘স্প্যানকো লিমিটেড’। পরেরটি হল ‘ক্যালিক্স কেমিক্যালস এন্ড ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড’(অন্ধ্রপ্রদেশ); তাদের লোন ৩,২৭,৮১,৯৭,৭৭২ টাকা। এই সকল ব্যাঙ্ক কর্মকর্তারা মুম্বাইতেই থাকেন।

আরও পড়ুনঃ জ্যোতি বসু স্মারক মিউজিয়ামের জমি জট কাটাতে বৈঠকে, মমতা ও বাম

তালিকায় রয়েছে; ‘এক্সেল মেটাল প্রসেসর প্রাইভেট লিমিটেড’ –এর ডিরেক্টর ইমরান খান এবং মোহাম্মদ আই খান। ৬১.২৬ কোটি টাকার দেনায় তারা জড়িত। ‘মাইক্রোকোস ইনফ্রাস্ট্রাকচার পাওয়ার প্রাইভেট লিমিটেড’–এর পরিচালক ঋষিকেশ শাহ ও জয়কিশন শাহ; এদের বিরুদ্ধে আছে ৫৬.৭৩ কোটি টাকা লোনের অভিযোগ।

আবার ‘মেটাল লিংক অ্যালয়েস লিমিটেড’-এর চেয়ারম্যান; ভাভরলাল এম জৈন এবং তাদের পিতা ও পরিচালক মংলাল জি জৈন এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজমল এম জৈন -এর বিরুদ্ধেও; রয়েছে ৫৩.৭৯ কোটি টাকা লোনের অভিযোগ।

আরও পড়ুনঃ বিজেপি ও বুদ্ধিজীবীদের পর এবার অশান্ত ভাটপাড়ায় তৃণমূল পরিষদীয় দল

এইভাবেই আরও ছোট বড়ো বিভিন্ন সংস্থা; লোনের দায়ে ভুগছে। এই ধরণের বিভিন্ন সংস্থার সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের সাথে কোনও চুক্তি করার আগে; ভালো ভাবে নির্দেশাবলী পড়ে নেওয়ার কথা জানিয়েছে এসবিআই। জনসাধারণকে সতর্ক করা হয়েছে বিভিন্ন ভাবে। কারণ এই বিষয়ে এসবিআই পরিকল্পনা করছে; কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন