রাজ্যের ডাকে সাড়া দিলেন না শুভেন্দু অধিকারী, যাচ্ছেন না নবান্নে

90
রাজ্যের ডাকে সাড়া দিলেন না শুভেন্দু অধিকারী, যাচ্ছেন না নবান্নে
রাজ্যের ডাকে সাড়া দিলেন না শুভেন্দু অধিকারী, যাচ্ছেন না নবান্নে
Simple Custom Content Adder

রাজ্যের ডাকে সাড়া দিলেন না শুভেন্দু অধিকারী; যাচ্ছেন না নবান্নে। সিবিআই তদন্তে জর্জরিত তৃণমূল নেতা-মন্ত্রীরা; এরমধ্যেই শুভেন্দুকে নবান্নে ডেকেছিল রাজ্য সরকার। লোকায়ুক্ত, মানবাধিকার কমিশন এবং তথ্য কমিশনের চেয়ারম্যান; এই তিন নিয়োগের বৈঠকে যোগ দিতে; বিধানসভার বিরোধী নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে ফের চিঠি দিয়েছিল নবান্ন। এর আগেও দু-দুবার চিঠি দিয়ে; বিধানসভায় আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল বিরোধী দলনেতা শুভেন্দুকে। তবে এই প্রথম তাঁকে নবান্নে ডাকা হল।

রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে; নবান্নে আসার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়। পাল্টা তিনি সেই আমন্ত্রণে সাড়া দেওয়ার জন্য; শর্ত দিয়েছিলেন রাজ্য সরকারকে। শুভেন্দু জানালেন, তাঁকে ভুল চিঠি দিয়ে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল; তাতে ভুল শব্দও ব্যবহার করা হয়েছিল। সেই শব্দ আগে প্রত্যাহার করতে হবে সরকারকে; তবে তিনি আমন্ত্রণে সাড়া দেওয়ার কথা ভেবে দেখতে পারেন।

লোকায়ুক্ত-সহ তিনটি বিভাগের কমিশনার পদে নিয়োগের জন্যই; শুভেন্দুর কাছে রাজ্য প্রশাসনের চিঠি গিয়েছিল। এই ধরনের পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে; রাজ্যের প্রধান বিরোধী দলনেতার উপস্থিত থাকাই নিয়ম। তাঁকে ছাড়া এই প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়া; একেবারের সম্ভব নয়। কিন্তু শুভেন্দুর দাবি, “তারপরও তাঁর আমন্ত্রণের চিঠিতে রাজ্য সরকার লিখেছে; রাজ্যপালের সুপারিশে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে বিরোধী দলনেতাকে”।

আরও পড়ুনঃ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশ থেকে রক্ষাকবচ পেতে হাইকোর্টে পার্থ

তাই শুভেন্দুর অন্যতম শর্ত ছিল, তাঁকে আমন্ত্রণ করার আগে ‘ভুল’; আগে শুধরোতে হবে রাজ্য সরকারকে। আর তা শুধরে ফেলতে হবে; গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার মধ্যেই। শুভেন্দু জানিয়েছিলেন, যদি রাজ্য সরকার এই ত্রুটি শুধরে নেয়; তবেই তিনি নবান্নের আমন্ত্রণ রক্ষা করার কথা ভেবে দেখতে পারেন। রাজ্য সরকার সেই শর্ত না মানায়; “নবান্নের বৈঠকে যাবেন না”, ঘোষণা করলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা।

তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি যোগ দেবার পরে; এই প্রথম শুভেন্দুকে নবান্নে ডেকে পাঠানো হয়েছিল। ২৩মে সোমবার বিকেল ৪টে এবং সাড়ে ৪টের দুটি বৈঠকে; তাঁকে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে চিঠি দিয়েছিলেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব বিপি গোপালিকা। সোমবার টুইট করে, শুভেন্দু অধিকারী পরিস্কার জানিয়ে দিলেন; “রাজ্য সরকার অনড় মনোভাব নেওয়ায়; নবান্নের বৈঠকে যাচ্ছেন না”। ফলে লোকায়ুক্ত, মানবাধিকার কমিশন এবং তথ্য কমিশনের চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ; আবারও ‘বিশ বাঁও জলে’।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন