সাতসকালে ভোটের বুথে কেঁদে ফেললেন ভারতী, উড়ে গেল পায়ের নখ

357
সাতসকালে ভোটের বুথে কেঁদে ফেললেন ভারতী, উড়ে গেল পায়ের নখ/The News বাংলা
সাতসকালে ভোটের বুথে কেঁদে ফেললেন ভারতী, উড়ে গেল পায়ের নখ/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

সাতসকালে ভোটের বুথে কেঁদে ফেললেন; ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষ। রবিবার সাতসকালে কেশপুরে; ভারতী ঘোষকে ঘিরে উত্তেজনা শুরু হয়। ভারতী ঘোষ কেশপুরের; একটি বুথে পৌঁছতেই তুমুল বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।

তৃণমূল-বিজেপি কর্মী সমর্থকদের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ শুরু হয়ে যায়। বুথ চত্বরেই তৃণমূল-বিজেপি ধস্তাধস্তি শুরু হয়। ধস্তাধস্তিতে পায়ে চোট পান ভারতী ঘোষ। তাঁর পায়ের নখ উড়ে গেছে। তাঁকে তৃণমূল কর্মীরা ধাক্কা দেন বলেই অভিযোগ। নখ উড়ে যাওয়ায় কেঁদে ফেলেন ভারতী।

আরও পড়ুনঃ ষষ্ঠ দফায় ১০০ শতাংশ বুথে থাকছে না কেন্দ্রীয় বাহিনী, প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থ কমিশন

ভোট শুরুতেই উত্তপ্ত; ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের কেশপুর। বুথের বাইরে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষ। বুথে তাঁর এজেন্টকে বসতে দেওয়া হয়নি; এই অভিযোগে সরব হন ভারতী। তারপরেই মারপিট শুরু হয়ে যায়।

কেন্দ্রীয় বাহিনীর কুইক রেসপন্স টিম; এলাকায় গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। কেশপুরের বিভিন্ন বিজেপি এজেন্ট বসতে না দেওয়া; বুথে ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ তুলেছেন ভারতী। হারার ভয়ে ভোট শুরু থেকেই ঝামেলা শুরু করেছে ভারতী; জানিয়েছে তৃণমূল।

আরও পড়ুনঃ অন্তঃসত্ত্বা মহিলার ছদ্মবেশে আত্মঘাতী হামলা হতে পারে হিন্দু বা বৌদ্ধ মন্দিরে

রবিবার বাংলার ১০০ শতাংশ বুথে; নেই কেন্দ্রীয় বাহিনী। ৯৪ শতাংশ বুথে আছে বাহিনী। নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর; রাজ্যের মাওবাদী এলাকায় বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে; তাই অন্যান্য সব জায়গায় ১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকছে না। আর এই নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ; করেছে বিরোধী দলগুলি।

আরও পড়ুনঃ বসিরহাট দাঙ্গার জন্য বিএসএফকে দায়ী করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রে; মাইক্রো অবজারভার আছে ৭২২; ভিডিও ক্যামেরা আছে ২৫; সিসিটিভি আছে ৭১২; ওয়েব কাস্টিং হচ্ছে ২৯৯। ঝাড়গ্রামে ১১৪ কোম্পানি ও পশ্চিম মেদিনীপুরে ১৭৪ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী আছে বুথে।

পশ্চিম মেদিনীপুর মাওবাদী এলাকা হওয়ায়; কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে সীমান্ত অঞ্চলেও। এই লোকসভা কেন্দ্রে ১০০ শতাংশ বুথেই; কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকার কথা জানিয়েছিল নির্বাচন কমিশন। তবে কেশপুরের অনেক বুথেই; কেন্দ্রীয় বাহিনী নেই বলে; অভিযোগ জানিয়েছেন বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন