একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের জন্যই বাংলায় অশান্তি, বিস্ফোরক দিলীপ ঘোষ

5377
দুধের গরু যাদের লাথ খান মমতা তাদের জন্যই রাজ্যে অশান্তি, বিস্ফোরক দিলীপ/The News বাংলা
দুধের গরু যাদের লাথ খান মমতা তাদের জন্যই রাজ্যে অশান্তি, বিস্ফোরক দিলীপ/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের জন্যই রাজ্যে অশান্তি; বিস্ফোরক মন্তব্য বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। “ভোট পাবার জন্য; মমতা কোন ব্যবস্থা নেন না। একটি বিশেষ সম্প্রদায় জানে; তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেবে না পুলিশ, তাই এত অশান্তি”; বুধবার বিজেপি রাজ্য অফিসে বিস্ফোরক মন্তব্য করেন দিলীপ ঘোষ। এই মন্তব্যের পর রাজ্য রাজনীতিতে শুরু হয়েছে তুমুল বিতর্ক। বিজেপির বিরুদ্ধে ধর্মীয় রাজনীতি করার অভিযোগ তৃণমূলের।

“দুধের গরু যাদের লাথ খান মমতা; তাদের জন্যই রাজ্যে অশান্তি”, বিস্ফোরক দিলীপ। “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তোষণ নীতির জন্যই; ভেঙে পড়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা”। বুধবার বিজেপির রাজ্য দফতরে সাংবাদিক বৈঠকে; এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন সাংসদ দিলীপ ঘোষ। তাঁর দাবি, “শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ভোট দেওয়ার অধিকারেই; আইনে বাইরে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা বিপন্ন করছে একটি বিশেষ সম্প্রদায়”।

বাংলায় অশান্তি থামাতে এবার হস্তক্ষেপ করলেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী

দিলীপ ঘোষের মন্তব্য, “রাজ্যের সমস্ত সরকারি হাসপাতাল বন্ধ। বেসরকারি হাসপাতালের পরিষেবাও ব্যাহত রয়েছে। প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ রোগী আসেন। অনেকে ক্যানসার আক্রান্ত। কী অবস্থায় আছেন তাঁরা! ডাক্তাররা আজকে পরিষেবা দেননি। কেন এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা? তাঁরা বাধ্য হয়েছেন। তাঁরা বিপন্ন। একাধিক হাসপাতালে এমন ঘটনা ঘটেছে”।

এরপরেই বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন; “বিকেল পাঁচটায় রোগী মারা গেল, আর রাতে এনআরএসে অবাধে ঢুকে পড়ল দুষ্কৃতীরা। হাসপাতাল মারপিট করার জায়গা?” মমতার বিরুদ্ধে তোষণের রাজনীতির অভিযোগ করে দিলীপ বলেন; “একটি বিশেষ সম্প্রদায়, যাদের দুধ খান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়; তারাই সন্দেশখালিতে খুন করেছে”।

আরও পড়ুনঃ বিজেপির লালবাজার অভিযান ঠেকাতে কলকাতা পুলিশের ইলেকট্রিক শক

দিলীপ ঘোষ আরও বলেন; “গতবছর কলকাতা মেডিক্যাল হাসপাতালে হামলা করেছে; এই বিশেষ সম্প্রদায়। আইনের বাইরে গিয়ে খালি মমতাকে ভোট দেওয়ার অধিকারে আইনশৃঙ্খলাকে বিপন্ন করছে একটি বিশেষ সম্প্রদায়। বিজেপির উপরে হামলা করা হচ্ছে। গত এক বছরে একটাও এফআইআর দেখলাম না। কেউ সাজা পেল না”।

দিলীপ ঘোষ আরও বলেন; “ডায়মন্ডহারবারের একাধিক গ্রাম হিন্দুশূন্য করা হয়েছে। সন্দেশখালিতে খুনিরাও একই সমাজের। একটা সমাজের লোকেদের; নিজেদের স্বার্থে দুষ্কৃতী তৈরি করছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। সেই সমাজের যারা মাথা তাদের বলব; এদের ফাঁদে পা দেবেন না”। এরপরেই রাজ্যে শুরু হয়েছে হইচই।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন