মৃত্যুদিনে মহাত্মা গান্ধীকে গুলি মেরে গ্রেফতার নেত্রী

401
মৃত্যুদিনে মহাত্মা গান্ধীকে গুলি মেরে গ্রেফতার নেত্রী/The News বাংলা
মৃত্যুদিনে মহাত্মা গান্ধীকে গুলি মেরে গ্রেফতার নেত্রী/The News বাংলা

‘ভারতের লজ্জা, দেশের কাল দিন’। এইভাবেই বর্ণনা করা হয়েছিল ঘটনাটিকে। মহাত্মা গাঁধীর মৃত্যুদিবসে তাঁর কুশপুতুলে গুলি চালানোর অভিযোগে হিন্দু মহাসভার নেত্রী পূজা শকুন পাণ্ডেকে নয়ডা থেকে গ্রেফতার করল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। আলিগড়ের নৌরঙ্গাবাদে মহাত্মা গাঁধীর ৭১তম মৃত্যুদিবসে দিনটিকে ‘শৌর্য দিবস’ হিসাবে পালন করার আহ্বান জানিয়েছিল হিন্দু মহাসভা। সেখানেই ঘটে এই লজ্জাজনক অধ্যায়।

আরও পড়ুনঃ ভারতের সংবিধান রক্ষা করতে ধর্মতলায় আবার ধর্ণা

মৃত্যুদিবস পালনে মহাত্মা গান্ধীর কুশপুতুলে ৩বার গুলি মেরে গ্রেফতার অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার নেত্রী পূজা শকুন পাণ্ডে। এ.ভি.এইচ.এম জাতীয় সম্পাদক ও নেত্রী পূজা শকুন পান্ডে সহ আরও ১৩জনের বিরুদ্ধে ১৫৩এ(ধর্মীয় বিভেদ) ২৯৫এ(ধর্মীয় উস্কানি) ও ১৪৭(গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব) ধারায় মামলা দায়ের করে উত্তরপ্রদেশের গান্ধী পার্ক থানা। আলীগরের গান্ধী পার্কের ঘটনার এই ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় গোটা দেশে।

আরও পড়ুনঃ সারদা রোজভ্যালি চিটফান্ড কাণ্ডে মমতার পুলিশ কর্তাদের বারবার তলব গোয়েন্দাদের

সম্প্রতি একটি ভিডিও ভাইরাল হয় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে। ভিডিওয় দেখা যায় ৩০ জানুয়ারি, গান্ধীজির ৭১তম মৃত্যুবার্ষিকীতে ওই নেত্রী মহাত্মার কুশপুতুল লক্ষ্য করে এয়ার পিস্তল থেকে গুলি করছেন। চারপাশ মুখরিত নাথুরাম গডসের জয়ধ্বনিতে। পরপর আরও কয়েক জনও গুলি চালায়, যারা হিন্দু মহাসভারই সদস্য। গাঁধীর কুশপুতুলে গুলি ছুঁড়ে, তাঁর বিরুদ্ধে ও তাঁর ঘাতক নাথুরাম গডসের সমর্থনে স্লোগান দেওয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ নতুন যুদ্ধ, রোজভ্যালি চিটফান্ড কাণ্ডে মমতার দুই অফিসারকে ডেকে পাঠাল ইডি

দেখা যায়, গুলির ক্ষতে কুশপুতুল থেকে রক্তস্রোতের মতো বেরিয়ে আসছে লাল তরল। যে তরল ভরা ছিল কুশপুতুলে থাকা একগোছা বেলুনে। পরে কুশপুতুলটি পুড়িয়ে দেওয়া হয়। সেই লজ্জাজনক ভিডিও দেখে হইচই পরে যায় গোটা দেশে। প্রতিবাদ শুরু হয়ে যায় দেশ জুড়ে। ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ হবার সঙ্গে সঙ্গে সেটি মুহূর্তের মধ্যে দেশ জুড়ে ভাইরাল হয়ে যায়।

আরও পড়ুনঃ সারদা চিটফান্ডে সর্বহারাদের দেখেই কি তাড়াতাড়ি ধর্ণা শেষ করলেন মমতা

চাপে পড়ে, এই ঘটনায় অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার ১৩জন সদস্যের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছিল পুলিশ। ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩এ(ধর্মীয় বিভেদ) ২৯৫এ(ধর্মীয় উস্কানি) ও ১৪৭(গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব) ধারায় এফআইআর দায়ের করা হয়। ইতিমধ্যেই নেত্রী সহ এদের মধ্যে ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ সারদা চিটফাণ্ড মামলায় রাজীবকে জেরা করতে কি কি প্রশ্ন সাজাচ্ছে সিবিআই

স্বাভাবিকভাবেই এই ভিডিও ভাইরাল হতে জনমনে ক্ষোভ তৈরি হয়। হিন্দু মহাসভার ওই কট্টর সদস্যদের ও ওই মহিলা নেত্রীকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশের উপর চাপ আসতে থাকে। হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে শেষ পর্যন্ত পূজা শকুন পান্ডে নামের ওই নেত্রীকে ও তার দলবলকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে বুধবার সাংবাদিকদের জানিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুনঃ উঠল বিজেপি বিরোধী সত্যাগ্রহ ধর্ণা, ধর্মতলার ধর্ণা প্রধানমন্ত্রী করতে পারবে মমতাকে

১৯৪৮ সালের ৩০শে জানুয়ারি নাথুরাম গডসের গুলিতে প্রাণ হারান মহাত্মা গান্ধী। আবার দ্বিতীয়বার, ভারতের মাটিতে গুলিবিদ্ধ হয়ে শহীদ হলেন জাতির জনক। তৈরি হল, ‘ভারতের লজ্জা, দেশের কাল দিন’।

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন