সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে তিনশ জঙ্গি মৃত্যুর প্রমাণ দিলেন বায়ুসেনা প্রধান

1141
সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে তিনশ জঙ্গি মৃত্যুর প্রমাণ দিলেন বায়ুসেনা প্রধান/The News বাংলা
সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে তিনশ জঙ্গি মৃত্যুর প্রমাণ দিলেন বায়ুসেনা প্রধান/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

শেষ পর্যন্ত বালাকোটে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক বিতর্কে মুখ খুললেন ভারতীয় বায়ুসেনা প্রধান বিএস ধানোয়া। সোমবার সংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘লাশ গোনা বিমান বাহিনীর কাজ নয়। নির্ধারিত সময়ে সরকার তা ঘোষণা করবে। আমরা শুধু দেখি, নির্ধারিত টার্গেটে হামলা সম্ভব হয়েছে কি না’। মোবাইল টাওয়ার দেখেই ভারতীয় গোয়েন্দারা বলে দিয়েছেন বিমান হানার সময় বালাকোটের ওই জঙ্গি ক্যাম্পে ৩০০ মোবাইল অ্যাক্টিভ ছিল।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীর থেকে কি ভাবে তাড়ানো হল পণ্ডিতদের

এদিন বায়ুসেনা প্রধান বিএস ধানোয়া জানান যে, কীসের ভিত্তিতে ৩০০ জঙ্গির মৃত্যুর খবর বলা হচ্ছে। ন্যাশনাল টেকনিক্যাল রিসার্চ অর্গানাইজেশন বা NTRO-র একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। এবং তাতে উল্লেখ করা রয়েছে যে, বায়ুসেনা বালাকোটে দ্বিতীয় সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানোর আগের দিন ভারতীয় গোয়েন্দারা খবর দিয়েছিলেন , জইশ-ই-মহম্মদের প্রশিক্ষণ শিবিরে ৩০০ মোবাইল ফোন অ্যাকটিভ রয়েছে। আর এরপরই অভিযান চালানোর সবুজসংকেত পায় বায়ুসেনা।

আরও পড়ুনঃ ভোটের আগে ভারতবাসীকে নতুন উপহার মোদীর

তবে তিনি পরিস্কার ভাবে জানিয়ে দেন যে বোমা ফাঁকা জঙ্গলে পড়েনি, বা শুধু পাইন গাছ নষ্ট হয়নি। বায়ুসেনা প্রধান বিএস ধানোয়া বলেন, বালাকোটে বায়ুসেনা লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে, পাকিস্তান তড়িঘড়ি করে সাংবাদিক বৈঠক করতে বসত না। সার্জিক্যাল স্ট্রাইক এর পর থেকেই বিভিন্ন মহলে এই স্ট্রাইক নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতা নেত্রীরা সন্দেহ প্রকাশ করেছেন।

আরও পড়ুনঃ ভারতের চাপে মাথা নত করল পাকিস্তান

কংগ্রেস নেতা সিধু মন্তব্য করেছিলেন ‘বায়ুসেনা কি ঠিক মত লক্ষ্যভেদ করতে পেরেছে নাকি শুধু গাছ উপড়ে ফেলে এসেছে’! সিধু ছাড়াও তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জী ও পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি সার্জিক্যাল স্ট্রাইক এর সত্যতার প্রমান চেয়েছিলেন। আর এক কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিংহ দাবি তোলেন প্রমান দেখতে চেয়ে।

আরও পড়ুনঃ মোদীকে হত্যা কর, কংগ্রেস নেতার প্রকাশ্য নির্দেশ

এমনকি সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে ভারতীয় বিরোধী নেতা নেত্রীদের এই ধরণের মন্তব্যকে হাতিয়ার করে পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম। পাকিস্তানের পত্র পত্রিকায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিশানা করে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর এই অভিযোগকেই তুলে ধরা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ঘরে ঢুকে মারব জঙ্গিদের, প্রকাশ্যে ঘোষণা প্রধানমন্ত্রী মোদীর

সেনার তরফ থেকে ন্যাশনাল টেকনিক্যাল রিসার্চ অর্গানাইজেশন নজরদারি চালিয়ে, ভারতীয় গোয়েন্দাদের রিপোর্টে সহমত পোষণ করে। দ্বিতীয় সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের সময় সক্রিয় থাকা ওই ৩০০ মোবাইল ফোনের ভিত্তিতেই ৩০০ জঙ্গি নিকেশের দাবি সামনে এসেছে।

আরও পড়ুনঃ ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে খতম জইশ জঙ্গি ও ডেরা স্বীকার মাসুদ ভাইয়ের
আরও পড়ুনঃ জঙ্গিদের সরাসরি সেনাবাহিনীতে নিচ্ছে ইমরানের পাকিস্তান
আরও পড়ুনঃ ভারতীয় সাবমেরিনের ভয়ে কাঁপছে পাকিস্তান
আরও পড়ুনঃ মুম্বাই হামলার মত ফের জলপথে জঙ্গি হামলার ছক

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন