হেলিকপ্টার দুর্নীতিতে আহমেদ প্যাটেলের নাম, সনিয়া রাহুলকে তুলধোনা নরেন্দ্র মোদীর

263
হেলিকপ্টার দুর্নীতিতে আহমেদ প্যাটেলের নাম, সনিয়া রাহুলকে তুলধোনা নরেন্দ্র মোদীর/The News বাংলা
হেলিকপ্টার দুর্নীতিতে আহমেদ প্যাটেলের নাম, সনিয়া রাহুলকে তুলধোনা নরেন্দ্র মোদীর/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

হেলিকপ্টার দুর্নীতির চার্জশিটে আহমেদ প্যাটেলের নাম। আর সেটাকেই ইস্যু করে সনিয়া রাহুলকে তুলধোনা করলেন নরেন্দ্র মোদী। দেরাদুনে ভোট প্রচারে মোদী বলেন, অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড চপার দুর্নীতি কাণ্ডে একজন AP অর্থাৎ কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল ও FAM মানে ফ্যামিলি অর্থাৎ গান্ধী ফ্যামিলি জড়িত। আর এই দিয়েই হেলিকপ্টার দুর্নীতিতে সনিয়া রাহুল ও কংগ্রেসকে টার্গেট করলেন মোদী।

আরও পড়ুনঃ ঘাসফুলে ভোট দিলে শান্তি পাবে মায়ের আত্মা, সুচিত্রার নাম করে ভোট প্রার্থনা মুনমুনের

ভোটের মুখে বিপদে পরেছে কংগ্রেস, হেলিকপ্টার দুর্নীতিতে জড়াল আহমেদ প্যাটেলের নাম। ইডির চার্জশিটে রয়েছে আহমেদ প্যাটেল এর নাম। ক্রিশ্চিয়ান মিচেল এর মুখে ও কাগজপত্রে যে ‘এপি'(AP) লেখা ছিল, তা আসলে সনিয়া গান্ধী ঘনিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল। ইডির ৫২ পাতার সপ্লিম্যানটারি চার্জশিটে রয়েছে কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল এর নাম। আর এটাকেই ইস্যু করে রাহুল সনিয়াকে একহাত নিলেন মোদী।

আরও পড়ুনঃ চিত্র পরিচালক ও লেখকদের পর ঘৃণার রাজনীতি নিয়ে সরব দেশের সেরা বিজ্ঞানীরা

লোকসভা ভোটের আগে কেন্দ্রীয় সরকার বা বিজেপি যেটা চাইছিল সেটাই হল। অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড চপার দুর্নীতি কাণ্ডে ‘মিসেস গান্ধী’ বা সোনিয়া গান্ধীর নাম নিয়েছেন মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত ক্রিশ্চিয়ান মিচেল। আদালতে তেমনই দাবি করেছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট বা ইডি। আর এরপরেই ফের শুরু হয় বিজেপি-কংগ্রেস বাগযুদ্ধ। এবার সনিয়া গান্ধী ঘনিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেলের নাম যোগ হল ইডির ৫২ পাতার সপ্লিম্যানটারি চার্জশিটে।

আরও পড়ুনঃ ঘৃণার রাজনীতির বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার আবেদন জানালেন দেশের ২০০ জন লেখক

চপার দুর্নীতিতে জড়িয়ে গেল সোনিয়া গান্ধী ও গান্ধী পরিবারের নাম। অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড চপার ভারত সরকারের কাছে বিক্রি করার জন্য ক্রিশ্চিয়ান মিচেল মিডলম্যান ছিলেন বলেই অভিযোগ। দুবাই থেকে ধরে আনা হয়েছে অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড ভিভিআইপি চপার দুর্নীতি মামলায় অন্যতম এই অভিযুক্ত ক্রিশ্চিয়ান মিচেলকে। এরপরেই তাকে জেরা ও তদন্তে উঠে আসে এক কোন এক রহস্যময় ‘AP’ র নাম। এই এপি যে আসলে সনিয়া গান্ধী ঘনিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল, সেটাই ইডির ৫২ পাতার সপ্লিম্যানটারি চার্জশিটে রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ভোট প্রচারে হেলিকপ্টার পাচ্ছেন না মমতা, অভিযোগের তীর কেন্দ্রের দিকে

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট মন্ত্রী, দেশের রাষ্ট্রপতির মতো ভিভিআইপি-দের দেশের মধ্যে সফরের জন্য মনমোহন সিংহ জমানায় ১২টি হেলিকপ্টার কেনার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। এ ব্যাপারে অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড নামে একটি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিও করা হয়। কিন্তু পরবর্তী কালে অভিযোগ ওঠে ওই প্রতিরক্ষা চুক্তিতে ঘুষ দেওয়া হয়েছে। এর পর মনমোহন জমানাতেই চুক্তিটি বাতিল করে দেওয়া হয়। কিন্তু সেই তদন্ত এখনও চলছে।

আরও পড়ুনঃ দলের প্রার্থীকে জেতালেই পুরষ্কার সোনার গহনা, বিদেশ ভ্রমনের টিকিট

কংগ্রেস আমলে ৩৭২৭ কোটি টাকার এই হেলিকপ্টার দুর্নীতি হয়। মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত ক্রিশ্চিয়ান মিচেলকে দুবাই থেকে ভারতে আনতে পারাটা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাফল্য বলেই প্রচার শুরু করে কেন্দ্রীয় সরকার ও বিজেপি। সেই ক্রিশ্চিয়ান মিচেল এখন ইডি-র হেফাজতে। সেখানেই তিনি তদন্তকারীদের ‘মিসেস গান্ধী’র নাম বলেছেন বলে ইডির দাবি। আর এরপরেই কংগ্রেসের উদ্দেশ্যে তোপ দেগেছে বিজেপি।

আরও পড়ুনঃ চিত্র পরিচালক, লেখক ও বিজ্ঞানীদের পর এবার ৬০০ নাট্যকর্মী ঘৃণার রাজনীতির বিরুদ্ধে

ভিভিআইপিদের জন্য চপার কেনার এই দুর্নীতি মামলার শুনানি ছিল দিল্লির পাতিয়ালা হাউস কোর্টে। সেখানেই ইডি এই দাবি করেছে বলে জানিয়েছে সংবাদসংস্থা এএনআই। ওই সংবাদসংস্থার দাবি, ইডি আদালতে জানিয়েছে মিচেল ওই ‘ইতালীয় মহিলা’র ছেলের সম্বন্ধেও মুখ খুলেছে। কীভাবে ‘ইতালীয় মহিলার ছেলে’ ভারতের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হবেন, সেই তথ্যও জেরায় জানিয়েছে মিচেল। আর এবার ৫২ পাতার সপ্লিম্যানটারি চার্জশিটে নাম রয়েছে সনিয়া গান্ধী ঘনিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল এর নাম।

আরও পড়ুনঃ মোদী কি করে প্রধানমন্ত্রী হল ভগবান জানে, মাথাভাঙায় বিস্ফোরক মমতা

প্রসঙ্গত, এই দুর্নীতি মামলায় বিজেপি প্রথম থেকেই গান্ধী পরিবারের জড়িয়ে থাকার অভিযোগ তুলেছে। রাজনৈতিক মহলের মতে, মিচেলের মুখ থেকে বেরনো ‘মিসেস গান্ধী’ আসলে ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধী। আর তাঁর ছেলে মানে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী।

আরও পড়ুনঃ ভোটের মুখে তৃণমূল সভাপতির বাড়ি থেকে উদ্ধার অস্ত্র ও কোটি কোটি টাকা

জেরায় কি সত্যিই গান্ধী পরিবারের নাম নিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ান মিচেল? তেমনই দাবি করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট বা ইডি। সেখানেই ইডির আইনজীবী দাবি করেন, ‘জেরার সময় মিসেস গান্ধীর নাম বলেছেন মিচেল৷’ তবে কীসের প্রেক্ষিতে তিনি এই নাম নিয়েছেন, সে বিষয়ে বিশদে কিছু বলতে চায়নি ইডি।

আরও পড়ুনঃ অ্যান্টি স্যাটেলাইট টেস্ট নিয়ে নাসার অভিযোগ উড়িয়ে দিল ভারত

এখানেই শেষ নয়। ইডির আরও দাবি, ‘ইতালিয় মহিলার ছেলে, যিনি ভারতের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হবেন’- তাঁর কথাও বলেছেন মিচেল। ইডির তরফে আদালতে আরও দাবি করা হয় যে, টেলিফোনে বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলার সময়ে মিচেল বারবারই ‘এপি'(AP) ও ‘আর’ নামের এক ব্যক্তির উল্লেখ করতেন। এই ‘আর’ কে, তা জানতে অনুসন্ধান চালাচ্ছে ইডি। ইডির ৫২ পাতার সপ্লিম্যানটারি চার্জশিটে এই ‘এপি'(AP) আসলে সনিয়া গান্ধী ঘনিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল, বলেই জানান হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ না মেনে বিমল গুরুং কে গ্রেফতার করতে পারেন মমতা

এর ফলে বিজেপি নতুন অস্ত্র পেয়ে গেল এই ইস্যুতে। তারা সোনিয়া ও রাহুলের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ইস্যুতে আক্রমণের ধার বাড়াতে শুরু করেছে। যদিও সঙ্গে সঙ্গে আসরে নেমেছে কংগ্রেসও। পালটা আক্রমণেরও পথ নিয়েছে তারাও। ইডির আইনজীবীর বক্ত্যব্যের পরই, আক্রমণের ধার আরও বাড়িয়ে প্রকাশ জাভড়েকর, রবিশঙ্কর প্রসাদরা বললেন, “এবার আসল চোর ধরা পড়বে”। এ দিকে, লোকসভা নির্বাচনের আগে মিচেলের মুখে গান্ধী পরিবারের সদস্যদের নাম আসায়, বিষয়টিতে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র দেখছে কংগ্রেস।

আরও পড়ুনঃ মোদী সরকারের উদ্যোগে ইউনেস্কোর কালচারাল হেরিটেজ সম্মান মনোনয়নে বাংলার দুর্গাপূজা

আদালতে ইডির এই দাবি সামনে আসার পরই সাংবাদিক বৈঠক করেন কংগ্রেসের মুখপাত্ররা। তাঁর দাবি, চাপ দিয়ে মিচেলকে দিয়ে একটি ‘বিশেষ’ পরিবারের নাম বলানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। তাঁর প্রশ্ন, “একটি পরিবারের নাম জড়ানোর জন্য চৌকিদার কেন সরকারি সংস্থার উপর চাপ সৃষ্টি করছেন”? বিজেপিই যে এই কাজ করছে, তাও স্পষ্টভাবেই অভিযোগ করেছেন ওই কংগ্রেস নেতা। “মিচেল কী বলবে, আদালতে ইডি কী জানাবে, সব বিজেপিই ঠিক করে দিচ্ছে”, বলেও তিনি অভিযোগ তুলেছেন।

আরও পড়ুনঃ অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড হেলিকপ্টার দুর্নীতিতে ইডির চার্জশিটে সনিয়া ঘনিষ্ঠ আহমেদ প্যাটেল

রাফায়েল যুদ্ধবিমান চুক্তি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে লাগাতার আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছেন রাহুল গান্ধী। বিশেষজ্ঞদের মতে, মিচেলের প্রত্যর্পণের পর এই কপ্টার দুর্নীতি যে মোদীর পাল্টা অস্ত্র হতে চলেছে, তা মোটের উপর বোঝাই যাচ্ছিল। বিশেষ করে মিচেল ভারতে আসার পরের দিনই রাজস্থানের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এই রাজদারকে জেরা করলেই কত নামদারের নাম সামনে আসবে”। অনেকের মতে, তখনই বোঝা গিয়েছিল এ ব্যাপারে সরকারের উদ্দেশ্য কী।

আরও পড়ুনঃ ভারতীকে রাজ্যে ঢোকা থেকে আটকাতে সুপ্রিম কোর্টে মমতা

আপাতত ফের অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড হেলিকপ্টার দুর্নীতি নিয়েই শোরগোল দিল্লির রাজনীতি। মোদীর রাফায়েল যুদ্ধবিমান দুর্নীতি বনাম রাহুলের অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড হেলিকপ্টার দুর্নীতি লড়াই এই লোকসভা ভোটের অন্যতম বড় ইস্যু। আর চপার দুর্নীতি ইস্যু নিয়েই এবার ময়দানে নেমে পরলেন মোদী।

আরও পড়ুনঃ মমতার দাবি না মেনে জঙ্গলমহল থেকে ৩০ কোম্পানি বাহিনী তুলছে নির্বাচন কমিশন

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন