যা হয়েছে তা ট্রেলার, আসল ফিল্ম এখনও বাকি বললেন নরেন্দ্র মোদী

771
ঘরে ঢুকে মারব জঙ্গিদের, প্রকাশ্যে ঘোষণা প্রধানমন্ত্রী মোদীর/The News বাংলা
ঘরে ঢুকে মারব জঙ্গিদের, প্রকাশ্যে ঘোষণা প্রধানমন্ত্রী মোদীর/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

“এখন পর্যন্ত যা হয়েছে তা ছিল পাইলট প্রোজেক্ট, আসল কাজ এখনও বাকি”। এইভাবেই ভারত পাক বর্তমান পরিস্থিতিকে বোঝালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর এই ভাষণ শোনার পরই প্রশ্ন উঠে গেছে দেশ জুড়ে, মোদী আর কি বড় সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন? তবে বাকিটা আর খোলসা করেননি মোদী।

আরও পড়ুনঃ বন্দি হয়েও ভারতীয় বায়ুসেনা অভিনন্দন এর সাহস দেখে কেঁপে গেল পাকিস্তান

দিল্লিতে সায়েন্টিস্টদের একটি অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, “ল্যাবরেটরিতে প্রথমে পাইলট প্রোজেক্ট হয়। তারপর হয় আসল জিনিস”। প্রধানমন্ত্রী বুঝিয়ে দেন, পাকিস্তান নিয়ে এখনও যা যা কিছু হয়েছে তা স্রেফ পাইলট প্রোজেক্ট। আসল জিনিস এখনও বাকি। আর এর পরেই দেশ জুড়ে হইচই পরে যায়, মোদী পাকিস্তান নিয়ে আর কি কি বড় সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন।

আরও পড়ুনঃ ভারতের কূটনৈতিক চাপে পাকিস্তান ফেরাচ্ছে পাইলট অভিনন্দনকে

গত মঙ্গলবার ভোরে, পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়েই শুধু নয়, পাকিস্তানের অন্তত ৪০ কিলোমিটার ভেতরে ঢুকে পড়ে ভারতীয় বিমান বাহিনী। ভারতীয় বায়ুসেনার ১২টি মিরাজ ২০০০ বিমান আছড়ে পড়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও মূল পাক ভূখণ্ডে ৷ ১০০০ কেজি বোমা ফেলা হয় জঙ্গিঘাঁটি গুলিতে৷ অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে চলে এই অভিযান। যে কারণে কম উচ্চতায় উড়তে সক্ষম এমন বিমান ব্যবহার করা হয়৷ পাক র‍াডার এড়াতে এমন পদক্ষেপ নেয় ভারতীয় সেনা।

আরও পড়ুনঃ ফের ভারতের আকাশে পাক বিমান, জবাব পেয়ে ঘুরে পালাল

সেনাপতির মতই নেতৃত্ব দেন ‘চৌকিদার’। সারারাত জেগে পাকিস্তানে বিমান হানার নেতৃত্বে ছিলেন স্বয়ং ‘চৌকিদার’ নরেন্দ্র মোদী। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬ সালে প্রথম সার্জিক্যাল স্ট্রাইক এর দিনও রাত জেগে জঙ্গি খতমের নেতৃত্বে ছিলেন মোদী। ২৬ শে ফেব্রুয়ারী ২০১৯ এও সেই নরেন্দ্র মোদীই দেন নেতৃত্ব। সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ১ এর মত সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ২ এর সময়ও প্রধানমন্ত্রী মোদী নয়াদিল্লির সাউথ ব্লকের দফতরে বসে গোটা অপারেশন ‘মনিটর’ করলেন।

আরও পড়ুনঃ যুদ্ধ লাগলে বাঁচতে সীমান্তে ১৪ হাজার বাঙ্কার নির্মাণ করছে ভারত

প্রায় ১০০০ কেজি বোমা ফেলে তারা। ধুলোয় মিশিয়ে দেওয়া হয় বালাকোট, মুজাফরাবাদ ও চকোটিতে জঙ্গিশিবিরগুলি। ২০ মিনিটের মধ্যে অপারেশন শেষ করে ভারতে ফেরে বিমানগুলি। এই হামলায় জইশ-ই-মহম্মদের ঘাঁটি সহ বহু জঙ্গিশিবির গুঁড়িয়ে দিয়েছে বায়ুসেনা। পুরো ব্যাপারটা নিজে সাউথ ব্লকের ওয়ার রুমে বসে ‘মনিটর’ করলেন ‘চৌকিদার’ নরেন্দ্র মোদী।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানে ভারতের বিমানহানার সময় জন্ম নবজাতকের নাম মিরাজ

প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী পারেননি। কিন্তু পাকিস্তানে ঢুকে জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে দেখালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ১৯৯৯ সালে ভারত যখন পাকিস্তানের সঙ্গে শান্তি স্থাপন করতে উদ্যোগী তখন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী ও ভারতের পিঠে ছুরি মেরেছিল পাকিস্তান। শান্তির মাঝেই দখলে নিয়েছিল কার্গিল। তখনও ভারতীয় বিমান বাহিনী পাকিস্তানে ঢুকে হামলার অনুমতি চেয়েছিল। কিন্তু দেননি প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী। ২০১৯ সালে সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি করেননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানের হাতে যুদ্ধবন্দি ভারতের যুদ্ধবিমান পাইলট উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন

এরপরেই ভারত পাক যুদ্ধ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। তবে এখানেই যে কাজ শেষ হয়ে যায়নি তা পরিস্কার বৃহস্পতিবার বুঝিয়ে দিলেন মোদী। তবে এই পরিস্থিতি যদি ‘পাইলট প্রোজেক্ট’ হয়, তাহলে ‘আসল কাজ’ বলতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কি বোঝাতে চেয়েছেন সেটাই এখন বড় প্রশ্ন। তাহলে কি বৃহস্পতিবার তিন সেনা প্রধানের সঙ্গে বসে আরও বড় কোন সিদ্ধান্ত নিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী? প্রশ্ন কিন্তু উঠে গেছে।

আরও পড়ুনঃ যুদ্ধের উত্তেজনা ভারত পাক সীমান্তে নামল ট্যাঙ্ক, সমুদ্রে প্রস্তুত যুদ্ধজাহাজ
এই সংক্রান্ত খবরঃ পাকিস্তানের যুদ্ধ বিমান ধ্বংস করে দিল ভারতীয় বিমান বাহিনী

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন