কাশ্মীরে নাবালককে মানব প্রাচীর হিসেবে ব্যবহার করে নির্মমভাবে হত্যা লস্কর জঙ্গিদের

267
কাশ্মীরে নাবালককে মানব প্রাচীর হিসেবে ব্যবহার করে নির্মমভাবে হত্যা লস্কর জঙ্গিদের/The News বাংলা
কাশ্মীরে নাবালককে মানব প্রাচীর হিসেবে ব্যবহার করে নির্মমভাবে হত্যা লস্কর জঙ্গিদের/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

জম্মু ও কাশ্মীরের সীমান্ত রক্ষা বাহিনী ২১শে বৃহস্পতিবার দুই পাকিস্তানি লস্কর ই তৈবার জঙ্গি সহ মোট ৫ জঙ্গিকে নিকেশ করেছে। এদের মধ্যে দুই লস্কর ই তৈবা জঙ্গি জম্মু ও কাশ্মীরের অবন্তীপোরা জেলায় সীমান্ত রক্ষা বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে নিকেশ হয়। মৃত্যুর আগে তারা ১২ বছরের একটি শিশুকে পণবন্দী করে আত্মরক্ষার প্রচেষ্টা চালায়। পরে তাকেও মেরে ফেলে জঙ্গিরা।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানে দুই হিন্দু নাবালিকাকে শ্লীলতাহানি ও জোরপূর্বক মুসলিম ধর্মান্তর

একাধিক সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, অবন্তীপোরার হাজ্জিন গ্রামে জঙ্গিরা লুকিয়ে রয়েছে, এই খবর পেতেই নিরাপত্তারক্ষীরা ওই এলাকা ঘিরে ফেলে এগোতে থাকে। তখনই জঙ্গিরা নিজেদের রক্ষা করতে নতুন পদ্ধতির আশ্রয় নেয়। জঙ্গিরা একটি বাড়িতে ঢুকে বাড়ির দুই সদস্যকে পণবন্দী করে নেয়।

আরও পড়ুনঃ আইএমএফ রিপোর্টে দ্রুততম অর্থনৈতিক বৃদ্ধির তালিকায় ভারত

পণবন্দী করা হয় ১২ বছরের আতিফ হুসেইন ও আবদুল হামিদ নামের ৬০ বছরের এক ব্যক্তিকে। আতিফের মা সরিফা জান বারবার তার সন্তানকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য সেনাবাহিনীর মাইক থেকে কাতর অনুরোধ জানায়। কিন্তু তার অনুরোধে জঙ্গিদের কোনও সাড়া পাওয়া যায়নি। তারপরেও প্রায় ৯ ঘন্টা আতিফকে পণবন্দী করে রেখে অবশেষে নৃশংসভাবে হত্যা করে জঙ্গিরা।

আরও পড়ুনঃ ভারতের কূটনৈতিক চাপে পাকিস্তানকে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার নির্দেশ আমেরিকার

এরপর সেনা ও পুলিশের সঙ্গে ওই দুই পাকিস্তানি লস্কর জঙ্গি আলী ও হুবাইবের গুলির লড়াই চলতে থাকে। শুক্রবার বিকেলে নিরাপত্তারক্ষীদের সাথে গুলির লড়াইয়ে নিকেশ হয় দুই লস্কর জঙ্গি। বাড়িটিতে প্রবেশের পর দুই জঙ্গির মৃতদেহ পাওয়া যায়। পাশেই পড়ে ছিল ১২ বছরের আতিফের পোড়া ও জঙ্গিদের গুলিতে এফোঁড় ওফোঁড় করা মৃতদেহ।

আরও পড়ুনঃ নরেন্দ্র মোদী সরকারের চাপে লন্ডনে গ্রেফতার ব্যাঙ্ক কেলেঙ্কারির খলনায়ক নীরব মোদী

আতিফের মা সরিফা জানান, তার সন্তানকে এভাবে জঙ্গিরা হত্যা করবে, তা তিনি ভাবতেই পারেননি। বৃহস্পতিবার সারা রাত তিনি সন্তানের জন্য প্রার্থনা করেন, তিনি তার সব প্রচেষ্টাই বিফলে যায়।

আরও পড়ুনঃ ২০২৫ সালের পর ভারতের অংশ হবে পাকিস্তান, ঘোষণা আরএসএস নেতার

আতিফ স্থানীয় আর্মি গুডউইল স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্র ছিল। ভবিষ্যতে তার বোর্ডিং স্কুলে অধ্যয়নের ইচ্ছে ছিল। মানসবলের একটি সৈনিক স্কুলে প্রবেশিকা পরীক্ষা দেওয়ার ইচ্ছেও ছিল ১২ বছরের অতিফের। কিন্তু জঙ্গিদের নৃশংসতায় সব সম্ভাবনায় ইতি ঘটলো।

আরও পড়ুনঃ নির্বাচন কমিশনের নতুন অ্যাপ সি ভিজিল, জনতার অভিযোগে ১০০ মিনিটের মধ্যে ব্যবস্থা

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন